BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা কালেও থেমে নেই জেলার রিভিউ মিটিং, সোমবার থেকে ভারচুয়াল বৈঠক মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 23, 2020 6:10 pm|    Updated: August 23, 2020 6:13 pm

An Images

সুমিত বিশ্বাস: পাঁচ মাস পর ফের জেলাগুলির পর্যালোচনা বৈঠক (Review Meeting) শুরু করছেন মুখ্যমন্ত্রী। করোনা আবহে নবান্ন থেকেই বিভিন্ন জেলা প্রশাসনকে নিয়ে ভারচুয়াল পর্যালোচনা হবে। সোমবার থেকে দফায় দফায় বিভিন্ন জেলা নিয়ে হবে আলোচনা। জানা গিয়েছে, প্রথম ধাপে দু’দিন ধরে ন’টি জেলার প্রশাসনিক কাজকর্ম পর্যালোচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার কুড়িটি দপ্তরকে নিয়ে বৈঠকে যোগ দেবে চার জেলা – হুগলি, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা। মঙ্গলবার থাকছে পাঁচটি জেলা – পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান। নবান্ন সভাঘর থেকে বিকেল তিনটেয় ভারচুয়াল বৈঠক শুরু করবেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যসচিব ছাড়াও কুড়িটি দপ্তরের প্রধান সচিব, সচিবরাও নবান্নের ওই বৈঠকে যোগ দেবেন।

[আরও পড়ুন: বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার গোঘাটে! আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে কাঠগড়ায় তৃণমূল]

করোনা পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee) একাধিকবার একসঙ্গে সব জেলাকে নিয়ে ভিডিও কনফারেন্স করেছেন। জেলার খুঁটিনাটি বিষয় জেনে পদক্ষেপও নিয়েছেন। তবে জেলার প্রশাসনিক রিভিউ মিটিং মহামারীর কারণে গত পাঁচ মাস ধরে বন্ধ ছিল। সেই রিভিউ মিটিংই ফের শুরু হচ্ছে। সংকটকালীন পরিস্থিতিতে জেলাগুলিতে বিভিন্ন দপ্তরের কাজ কেমন হয়েছে, এই বৈঠকে সেই খতিয়ান তুলে ধরবেন জেলাশাসকরা। বৈঠকে যোগ দেবেন বিভিন্ন জেলা পরিষদের সভাধিপতি, পুলিশ কমিশনার, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত জেলাশাসক, মহকুমা শাসক, বিডিও, এসডিপিও, আইসি ও ওসিরা। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনেই মুখ্যমন্ত্রীর এই ভারচুয়াল বৈঠক হবে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। সোমবার থেকে শুরু হওয়া রিভিউ মিটিং থেকে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিকে মুখ্যমন্ত্রী কী বার্তা দেবেন, সেই দিকে তাকিয়ে জেলার আমলারা।

সামনেই বিধানসভা ভোট। গত দশ বছরে জঙ্গলমহল-সহ দক্ষিণবঙ্গের এই জেলাগুলিতে যেমন পরিকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে, তেমনই সরকারি সহায়তা পেয়েছেন মানুষজন। জন্ম থেকে মৃত্যু – সবুজশ্রী থেকে সমব্যথী। একগুচ্ছ প্রকল্পের মাধ্যমে এই জেলাগুলির প্রত্যন্ত অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক অবস্থা বদলে গিয়েছে। কিন্তু রাজ্য সরকারের এই ঢালাও উন্নয়ন কাজের প্রচার সেভাবে তুলে ধরা হয়নি। তাই নবান্নের তরফে জেলায় জেলায় বিধানসভাভিত্তিক পুস্তিকা তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: একুশের লড়াইয়ে তৃণমূলের হাতিয়ার যুবসমাজ, রাজ্যজুড়ে শাসকদলে যোগদান প্রায় ৪ লক্ষ যুবকের]

সোমবার থেকে শুরু হওয়া রিভিউ মিটিংয়ে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের প্রচারকাজের বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হতে পারে। কৃষি, কৃষি বিপণন, প্রাণিসম্পদ বিকাশ, অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণ, প্রাকৃতিক বিপর্যয় ব্যবস্থাপন, মৎস্য, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ও উদ্যান পালন, খাদ্য ও সরবরাহ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ, সেচ ও জলপথ, ভূমি ও ভূমি সংস্কার, সংখ্যালঘু উন্নয়ন, পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন, বিদ্যুৎ, জনস্বাস্থ্য, পূর্ত, আদিবাসী উন্নয়ন, নগরোন্নয়ন ও পুরসভা, জলসম্পদ এবং নারী, শিশু উন্নয়ন ও সমাজকল্যাণ দপ্তরের কাজ নিয়ে এই ভারচুয়াল বৈঠক হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement