BREAKING NEWS

১৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

শেষ দফার আগেও রাজনৈতিক উত্তেজনা, শাসকদলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: May 18, 2019 1:53 pm|    Updated: May 18, 2019 7:37 pm

An Images

দেবব্রত মণ্ডল ও শংকরকুমার রায়: ভোটের শেষ লগ্নেও রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত। উত্তর দিনাজপুরের চোপড়ায় কংগ্রেস কর্মীকে মারধরের অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে, তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলি। আহত হয়েছেন ৪ জন। পাশাপাশি, মেরিগঞ্জে বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠল শাসকদল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। পৃথক ঘটনাগুলির তদন্তে পুলিশ।

[আর পড়ুন: সূর্যের তেজের দোসর তীব্র আর্দ্রতা, আগামিকাল অস্বস্তি চরমে ওঠার পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের]

রবিবার লোকসভা নির্বাচনের সপ্তম তথা শেষ দফার ভোটগ্রহণ। ওই দিনই ইসলামপুর বিধানসভা-সহ বেশ কয়েকটি বিধানসভার নির্বাচন। তার ঠিক আগেই কংগ্রেস কর্মীকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগে উত্তপ্ত হয়ে উঠল উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া এলাকা। জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া থানার লক্ষ্ণীপুরের বাসিন্দা সফিক আলম নামে ওই কংগ্রসে কর্মী বাইক নিয়ে কাঠগাঁও থেকে ফিরছিলেন। অভিযোগ, মিখাপোখরে তাঁর পথ আটকায় বেশ কয়েকজন যুবক। বেধড়ক মারধর করে তাঁর সঙ্গে থাকা টাকা ও মোবাইল কেড়ে নিয়ে চম্পট দেয় অভিযুক্তরা। এরপর গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা সফিককে উদ্ধার করে প্রথমে লক্ষ্মীপুর দলুয়া ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় তাঁকে। ঘটনার প্রতিবাদে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে শনিবার সকালে লক্ষ্ণীপুর এলাকায় বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস কর্মীরা। পরে চোপড়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনে। সূত্রের খবর, আক্রান্তের বাইকটি উদ্ধার করতে পেরেছে পুলিশ।

[আর পড়ুন: ফলের আগে সরগরম পুরুলিয়ার বেটিং বাজার, পছন্দের প্রার্থীকে নিয়ে লক্ষাধিক টাকার বাজি]

অন্যদিকে, তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলির গোপালপুর। দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত হয়েছেন মোট ৪ জন। তাঁদের উদ্ধার করে ইতিমধ্যেই ক্যানিং হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। পাশপাশি, মিরগঞ্জে পতাকা টাঙানোর সময় বিজেপি কর্মীকে আক্রমণের অভিযোগ ওঠে শাসকদল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। যদিও বিজেপির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শাসকদলের কর্মীরা।

An Images
An Images
An Images An Images