১০ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অরূপ বসাক, মালবাজার: মাল থানার ওসি অসীম মজুমদারের আচমকা পদত্যাগের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল পুলিশ মহল থেকে মালবাজারে সর্বত্র। ওসি অসীম মজুমদার ঘনিষ্ঠ মহলে পদত্যাগের কথা স্বীকার করে নিলেও পুলিশের উপর মহলের সব কর্তারাই বিষয়টি জানেন না বলে এড়িয়ে গিয়েছেন। যদিও এই বিষয়ে মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দেবাশিস চক্রবর্তী বলেন, কোনও অভিযোগ পত্র জমা পড়েনি।

এনিয়ে রবিবার সকালে স্বয়ং ওসি অসীম মজুমদার বলেন, পরিবার পালনের জন্য চাকরি করা। সেই পরিবারকে বাদ দিয়ে কিছু করা যায় না। এনিয়ে জেলা পুলিশ সুপার অভিষেক মোদির কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এনিয়ে কিছু বলা যাবে না। তবে কোনও পদত্যাগ পত্র আমার হাতে আসেনি।’ অসীম মজুমদার জানিয়েছেন, আমার সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কোনও কথা হয়নি।

[আরও পড়ুন: ‘খুন করা হয়েছে জেলা সভাপতিকে’, দুর্ঘটনার তত্ত্ব ওড়ালেন মুকুল রায়]

স্থানীয় মালবাজার ও ওদলাবাড়িতে এই পদত্যাগকে ঘিরে গুঞ্জন উঠেছে। গুঞ্জন থেকে জানা গিয়েছে, ওদলাবাড়ি ও গজলডোবায় নদী থেকে বালি পাথর সংগ্রহের রাজস্ব হ্রাস নিয়ে পুলিশ মহলে বাদানুবাদ শুরু হয়। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের স্বার্থে রয়্যালটি কমিয়ে দেন ওসি অসীম মজুমদার। এতে রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি হয়। সেই নিয়ে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন ওসি বলে অভিযোগ। এর জেরেই পদত্যাগ হতে পারে।

রবিবার সন্ধ্যা নাগাদ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) রেনডুপ শেরপা জানান, মাল থানার ওসি অসীম মজুমদারকে রুটিন বদলির নিয়ম অনুযায়ী জলপাইগুড়ি জেলা পুলিশের সদর দপ্তরে বদলি করা হয়েছে। মাল থানার ওসি হিসাবে দায়িত্ব নিচ্ছেন ক্রান্তি ফাঁড়ির ওসি খেশং লামা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং