BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভোটপ্রচারে মহম্মদ সেলিম, বাড়ি বাড়ি গিয়ে পাশে থাকার আশ্বাস দিলেন দীপা দাশমুন্সি

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: March 31, 2019 8:41 pm|    Updated: April 17, 2019 6:11 pm

An Images

শঙ্করকুমার রায়, রায়গঞ্জ: ভোটের বাদ্যি বেজে গিয়েছে, প্রচারে ব্যস্ত শাসক-বিরোধী সকলেই। ইতিমধ্যেই জোরকদমে প্রচার শুরু করেছেন বামপ্রার্থীরাও। রবিবার সেই ছবি দেখা রায়গঞ্জেও। ছুটির সকালে ভোট প্রচারে বের হলেন বিদায়ী সাংসদ তথা রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী মহম্মদ সেলিম। একই দিনে কর্মীদের নিয়ে একদফা প্রচার সারলেন কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি।

[আরও পড়ুন: প্রচারে বেরিয়ে গৃহস্থের হেঁশেল খুন্তি নাড়লেন মমতাবালা, চায়ের আড্ডায় শান্তনু]

নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর ছুটির সকাল মানেই রাজনৈতিক দলের মিটিং-মিছিল আর সভা। এই রবিবারও তার অন্যথা হল না। এদিন সকালেই দলীয় কর্মীদের নিয়ে প্রচারে বেরিয়ে পড়েন রায়গঞ্জের বামপ্রার্থী মহম্মদ সেলিম। শুরুতেই রায়গঞ্জের দেবীনগর এলাকায় প্রচারে যান তিনি।  ওই এলাকার  বিভিন্ন বাড়ি-বাড়ি গিয়ে সকলের সঙ্গে কথা বলেন স্বয়ং প্রার্থী। খুদেদের হাতে তুলে দেন চকলেট। জানা গিয়েছে, এরপর ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের কালীতলা এলাকায় একটি মন্দিরে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান তিনি। মন্দির চত্বরেই এলাকার মানুষজনের সঙ্গে আড্ডাও দেন। এরপর রায়গঞ্জ পুরসভার ১১ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন বাড়ি বাড়ি গিয়ে দলীয় বার্তা দেন মহম্মদ সেলিম। তাঁদের অভাব অভিযোগের কথাও শোনেন। স্থানীয় চায়ের দোকানেও বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান মহম্মদ সেলিম। সেখান থেকে নিখিল বঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির একটি সভায় যান তিনি। সংগঠনের তরফে কৃষ্ণেন্দু রায়চৌধুরি তাঁকে শুভেচ্ছা জানান। সভায় বেশ কিছুক্ষণ ছিলেন সিপিএম প্রার্থী। তাঁদের সমস্যার কথাও শোনেন তিনি।

[আরও পড়ুন: মিসড কল দিয়েই লড়াইয়ের সঙ্গী খুঁজছেন বর্ধমান-দুর্গাপুরের কংগ্রেস প্রার্থী!]

একই দিনে পায়ে হেঁটে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন এলাকায় প্রচার সারলেন কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি। কর্ণজোড়া এলাকার মেড়ুয়াল বিএসএফ ক্যাম্পের খুদেদের চকোলেট, বিস্কুট উপহার দেন তিনি। এরপর বাড়ি বাড়ি গিয়ে সকলের সঙ্গে কথা বলেন। সকলের সমস্যার কথা শোনেন। ক্ষমতায় এলে পাশে থাকার আশ্বাসও দেন তিনি। তবে কোন প্রার্থীর আহ্বানে সাড়া দিলেন মানুষ, তা বোঝা যাবে ভোটের ফলাফল ঘোষণার পরেই।   

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement