২ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সিপিএম থেকে বিজেপিতে, আইনুল হকের বিরুদ্ধে পোস্টার গেরুয়া শিবিরের নিচুতলার কর্মীদের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 25, 2019 5:01 pm|    Updated: April 22, 2019 4:14 pm

An Images

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: ‘গণহত্যাকারী, আরএসএস হত্যাকারী আইনুল হকের বিজেপিতে কোনও ঠাঁই নেই।’ ‘আরএসএস কর্মী হত্যাকারী আইনুল হককে বিজেপিতে মানছি না মানব না।’ ‘হার্মাদ আইনুল হকের বিজেপিতে কোনও ঠাঁই নেই।’ আরএসএস ও পুরনো বিজেপি কর্মীদের নাম দিয়ে সদ্য সিপিএম ত্যাগী আইনুল হকের বিরুদ্ধে এমনই সব পোস্টার পড়েছে বর্ধমান শহরের কার্জন গেট চত্বরে।

আরও পড়ুন: বালুরঘাটে অন্তঃসত্ত্বাকে ধর্ষণের চেষ্টা, কাঠগড়ায় দেওর ]

সাতসকালে পোস্টার ঘিরে ব্যাপক শোরগোল পড়ে যায় শহরে। গত শনিবারই কলকাতায় এক অনুষ্ঠানে বিজেপিতে যোগদান করেন একসময়ের ডাকসাইটে সিপিএম নেতা আইনুল হক। তাঁকে নিয়ে বিজেপির অন্দরে যে ক্ষোভ রয়েছে এদিন তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। যদিও বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না বিজেপি নেতৃত্ব। আইনুল হকও দাবি করেছেন, বিজেপির কেউ এই কাজ করেনি। এদিন মোবাইলে যোগাযোগ করা বলে আইনুল হক বলেন, “আমি এইটুকু বলতে পারি, এটা বিজেপির কেউ করেনি। আর কারা করেছে সেটাও জানি। বর্ধমান শহরকে আমি হাতের তালুর মতোই চিনি। কার্জন গেট চত্বরে কারা এইসব করেছে আমার জানা আছে। অতীতেও তারা এইসবই করত।” বিজেপির বর্ধমানের সাংগঠনিক সভাপতি সন্দীপ নন্দী জানান, দলের কেউ করেনি বলেই তাঁরা মনে করেন। বিজেপির দাবি, বিরোধীরা চক্রান্ত করে এইসব করেছে।

bjp-poster-1

বর্ধমান শহরে গাথা হয়ে গিয়েছিল, আইনুলের অগোচরে শহরের কোনও গাছের পাতাও নাকি পড়ত না। ছাত্র রাজনীতিতে পা রেখে এসএফআই-এর জেলা সম্পাদক হন টানা ছ’বছর। প্রয়াত নিরুপম সেনের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। সিপিএমের জেলা কমিটি, জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য হন। বর্ধমান পুরসভার পুরপ্রধানও ছিলেন। গত বিধানসভা নির্বাচনে বর্ধমান দক্ষিণ কেন্দ্রে সিপিএম তাঁকে প্রার্থীও করে। কিন্তু পরাজিত হন। তার কয়েকমাস পরেই দল বিরোধী কাজ ও নৈতিক অধঃপতনের অভিযোগে জেলা সিপিএম সরাসরি আইনুল হককে বহিষ্কার করে। রাজ্য কমিটিও পরে তাতে সিলমোহর দেয়। এর পরে আইনুলের তৃণমূলে যোগদান করা নিয়ে দড়ি টানাটানি চলতে থাকে। শেষ পর্যন্ত তৃণমূল নেতৃত্ব তাঁকে না নেওয়ায় এবার গেরুয়া শিবিরে যোগদান করেন আইনুল। কিন্তু তাঁকে নিয়ে যে বিজেপির অন্দরেও ক্ষোভ রয়েছে, তা এদিনের পোস্টার থেকেই স্পষ্ট বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। প্রার্থী করা নিয়েও রাজ্যজুড়ে ক্ষোভের আঁচ বিজেপির অন্দরে।

[ আরও পড়ুন: অজানা উৎস থেকে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে ঢুকছে হাজার-হাজার টাকা, চাঞ্চল্য নদিয়ায় ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement