৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রঞ্জন মহাপাত্র, কাঁথি: গণতন্ত্র আজ কাঁদছে। এর চারটি স্তম্ভকে নষ্ট করে দেওয়া হচ্ছে। ভুল পদ্ধতিতে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে এবং বিচার চলছে। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদম্বরমের গ্রেপ্তারি নিয়ে মুখ খুলে বেশ কড়া প্রতিক্রিয়াই দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে দিঘায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘অনেক সময়ে অনেক পদক্ষেপে পদ্ধতিগত ত্রুটি থেকে যাচ্ছে। আমি আইন নিয়ে কিছু বলতে পারি না। কিন্তু চিদম্বরমের মতো একজন প্রবীণ, দক্ষ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, একজন প্রাক্তন মন্ত্রীকে যেভাবে গ্রেপ্তার করা হল, তা খুবই নিন্দনীয় এবং দুঃখজনক।’

[আরও পড়ুন: বোমা বাঁধতে গিয়ে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ, মৃত ১ দুষ্কৃতী]

আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় বুধবার সন্ধেয় পি চিদম্বরম সিবিআইয়ের হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে কংগ্রেস এর বিরোধিতায় একেবারে তেড়েফুঁড়ে নেমেছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দফায় দফায় সাংবাদিক বৈঠক করে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে নির্দোষ প্রমাণের চেষ্টার কসুর করেননি দলের শীর্ষ স্তরের প্রায় কোনও নেতাই। এবার চিদম্বরমের পাশে দাঁড়ালেন তৃণমূল সুপ্রিমোও। প্রশাসনিক কাজকর্ম হাতে নিয়ে তিনি আপাতত দিঘা সফরে। সেখান থেকেই বৃহস্পতিবার দুপুরে এনিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আরও বক্তব্য, ’’চিদম্বরমের সঙ্গে যে আচরণ করা হয়েছে, তা মেনে নেওয়া যায় না। গ্রেপ্তারির পদ্ধতিতেও গলদ আছে। সফল গণতন্ত্রের যে চারটি স্তম্ভ, তার সবকটিই ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। সংবাদমাধ্যমেরও মুখ বন্ধ করে নিজেদের পক্ষে কথা বলানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। আর শেষপর্যন্ত একটি অন্যতম স্তম্ভ বিচারব্যবস্থাকেও এমন পর্যায়ে এনে ফেলা হয়েছে, যা অত্যন্ত হতাশাজনক। আইন আইনের পথেই চলবে। কিন্তু রবীন্দ্রনাথের কথা এটি না বলে থাকা যাচ্ছে না যে আজ ‘বিচারের বাণী নীরবে, নিভৃতে কাঁদে’।’’

[আরও পড়ুন: বান্ধবীর সঙ্গে গেস্ট হাউসে মৌজ তৃণমূল নেতার, পুলিশ নিয়ে হাজির স্ত্রী]

এর আগেও কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের যে কোনও পদক্ষেপেই তীব্র প্রতিবাদ করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। বিশেষত সিবিআই বা ইডি-কে বিরোধী দলের নেতাদের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ব্যবহার করার অভিযোগ বারবারই তাঁর মুখে শোনা গিয়েছে। ফলে চিদম্বরমের মতো বিরোধী নেতার গ্রেপ্তারিতে তিনি যে প্রতিবাদ জানাবেন, সেটাই কাম্য ছিল। এবং প্রত্যাশামতোই তিনি গর্জে উঠে কেন্দ্রের স্বৈরতন্ত্রের অভিযোগ তুললেন। এদিকে, চিদম্বরমের গ্রেপ্তারির প্রতিবাদে কলকাতার রাজাবাজারে পোস্টার, ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস কর্মীরা। বিহারেও বিক্ষোভে নেমেছেন দলের কর্মী, সমর্থকরা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং