BREAKING NEWS

২৪  মাঘ  ১৪২৯  বুধবার ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

শক্তিশালী হচ্ছে ঘূর্ণাবর্ত, আরও ৪৮ ঘণ্টা চলবে ঝড়-বৃষ্টি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 4, 2016 2:40 pm|    Updated: November 4, 2016 2:40 pm

Depression will cause more rain for upcoming 48 hours

স্টাফ রিপোর্টার: বঙ্গোপসাগরে ঘনীভূত গভীর নিম্নচাপ আরও শক্তিশালী হয়েছে৷ যার জেরে সকাল থেকেই আকাশের মুখ ভার৷ হাল্কা থেকে ভারী বৃষ্টি শহর-শহরতলিতে৷ আজ গোটা দিন আবহাওয়া এরকমই থাকবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর৷ সকাল থেকেই আকাশ মেঘে ঢাকা৷ ফলে দৃশ্যমানতা কম থাকায় ট্রেন কিছুটা দেরিতে চলে৷ দুর্ভোগে পড়েন হাওড়া এবং শিয়ালদহ শাখার নিত্যযাত্রীরা৷ আগামী ৪৮ ঘণ্টায় এই নিম্নচাপে প্রভাবে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে৷ রাজ্য প্রশাসনের তরফে উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে৷ তবে উৎসবের মরশুমে, বিশেষ করে জগদ্ধাত্রী এবং ছটপুজোর মুখে রাজ্যের আবহাওয়ার এমন পরিবর্তন রীতিমতো শঙ্কা জাগিয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে৷

বাংলা ঘেঁষে বাংলাদেশে ধেয়ে আসছে ঘূণিঝড় ‘নাডা’৷ সময় যত এগোচ্ছে, শক্তি সঞ্চয় করে আরও গতি বাড়াচ্ছে বাংলাদেশমুখী এই গভীর নিম্নচাপ৷ শনিবারের মধ্যে এ রাজ্য ও বাংলাদেশের মাঝে উপকূলবর্তী এলাকায় প্রায় ৬০ কিলোমিটার গতিবেগে এই ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার কথা জানিয়েছে মৌসম ভবন৷ তার জন্য মূলত দক্ষিণবঙ্গের উপকূলবর্তী এলাকা-সহ দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি ও দুই মেদিনীপুরে এর প্রভাব পড়বে৷ তবে মৌসম ভবনের সতর্কতা জারির সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন৷ উপকূলবর্তী এলাকায় বিশেষ সতর্কতা জারির পাশাপাশি সম্ভাব্য সব এলাকায় জরুরি বিভাগগুলিকে সতর্ক করা হয়েছে৷ সেচ দফতরের পাশাপাশি কলকাতা পুরসভা ও সংশ্লিষ্ট এলাকার পুরসভাগুলিতেও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে৷ তৈরি রয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা দলও৷

বাংলার উপকূলে এসে আঘাত করলেও ‘নাডা’ যে সরাসরি বাংলায় আছড়ে পড়বে তা বলছে না মৌসম ভবন৷ বাংলার দিকে এগনোর মুখে অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িশা উপকূল ঘেঁষে আসতে হবে তাকে৷ ফলে ওই উপকূলবর্তী এলাকাতেও তার অনেকটাই প্রভাব পড়বে৷ একইসঙ্গে বাংলায় প্রবল ক্ষতির সম্ভাবনা কমবে৷ এমন পরিস্থিতির পূর্বাভাস হিসাবে বৃহস্পতিবার থেকেই বজ্রগর্ভ বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে৷ আজ থেকে ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিপাতের পরিমাণও বাড়ার সম্ভাবনা৷ সব থেকে বেশি বৃষ্টি হওয়ার কথা অন্ধ্রপ্রদেশ ও এ রাজ্যে৷

কিয়ন্তের পর বিশাখাপত্তনমের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব কোণে পারাদ্বীপের কাছে নতুন করে একটি নিম্নচাপ ঘনীভূত হতে শুরু করে দু’দিন আগেই৷ সে সময়ই জানিয়ে দেওয়া হয় এর প্রভাবে শীতও পিছোবে৷ এর প্রভাবেই আর্দ্রতা বেড়ে আবহাওয়া উষ্ণ হতে শুরু করে৷ আজ ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়ে নিম্নচাপটি উত্তর-পশ্চিম দিশায় অর্থাৎ ভারতের দক্ষিণ উপকূলে ধেয়ে আসার সম্ভাবনা৷ যার প্রভাব পড়বে অন্ধ্র উপকূলে৷ পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তার মুখ ঘুরে যাবে বাংলাদেশ উপকূলের দিকে৷ যার জেরে ভারত মহাসাগর ও বঙ্গোপসাগরের মধ্যবর্তী এলাকায় সমুদ্রে তীব্র জলোচ্ছ্বাস দেখা দেবে৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে