১৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বৈবাহিক সম্পর্কে টানাপোড়েনের জের? গলার নলি কেটে খুন মা, খালের জলে পড়ে মৃত সন্তান

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 13, 2021 12:41 pm|    Updated: August 13, 2021 12:47 pm

Dholahat murder case: mother and two years old son killed by four miscreants | Sangbad Pratidin

সুরজিৎ দেব, ডায়মন্ড হারবার: নৃশংস! মা ও আড়াই বছরের শিশুকে (Mother and son) ঘরে ঢুকে গলার নলি কেটে খুনের মতো রোমহর্ষক ঘটনা ঘটল দক্ষিণ ২৪ পরগনার (South 24 parganas) ঢোলাহাটে। এখনও কেউ গ্রেপ্তার হয়নি এই ঘটনায়। স্থানীয়দের অনুমান, একাধিক বৈবাহিক সম্পর্কের টানাপোড়েনের বলি হতে হয়েছে মা ও সন্তানকে। স্বামীর আরেকপক্ষের স্ত্রীর সঙ্গে বিবাদের জেরে এমন ঘটনা বলে অভিযোগ তাঁদের। তদন্তে নেমেছে ঢোলাহাট থানার পুলিশ।

ঘটনা বৃহস্পতিবার সন্ধের। ঢোলাহাটের শিবনগর গ্রামের বাসিন্দা আনোয়ার পাইক গিয়েছিলেন বাড়ির পাশে গ্রামের একটি বৈঠকে গিয়েছিলেন। ঘরে একা ছিলেন তাঁর স্ত্রী মঞ্জুয়ারা বিবি এবং আড়াই বছরের সন্তান মিজানুর হোসেন। মন্দিরবাজারের ডিএসপি দিবাকর দাস জানিয়েছেন, সাড়ে ৭টা নাগাদ আচমকাই ঘরে ঢুকে পড়ে জনা কয়েক দুষ্কৃতী। প্রতিবেশীরা জানাচ্ছেন, মঞ্জুয়ারা বিবির গলার নলি কেটে দেওয়ার পর তাঁর হাত ও পায়ের শিরাও কেটে দেওয়া হয় ধারাল অস্ত্র দিয়ে। এরপর আড়াই বছরের শিশুটিকে পাশের ভেড়ির জলে ফেলে দেওয়া হয়। পরে সেখানেই মৃত্যু হয় শিশুটির।

[আরও পড়ুন: Malda’র ভূতনির চরে গঙ্গার বাঁধ ভেঙে প্লাবন, নির্মাণকারী সংস্থার ভূমিকায় প্রশ্ন]

এই ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী পাশের ঘরে থাকা নিহত মঞ্জুয়ারা বিবির আরেক ছেলে। ১১ বছরের ওই কিশোর পুলিশকে জানায়, চারজনকে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে দেখেছে সে। কিন্তু খুনের বিষয়টি জানে না। পরে মাকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে খবর দেন প্রতিবেশীদের। কিন্তু আচমকা কেন এমন ঘটনা? কেন এভাবে আচমকা ঘরে ঢুকে এভাবে গলার নলি কেটে খুন? কারাই বা এর পিছনে দায়ী? এসব প্রশ্নের সঠিক কোনও উত্তর না মিললেও প্রতিবেশীদের অনুমান, আনোয়ারের প্রথম পক্ষের স্ত্রীর সঙ্গে কোনও সমস্যা চলছিল। দ্বিতীয় পক্ষের  স্ত্রীর উপর হয়ত তারই কোপ পড়ল। তদন্তে নেমেছে ঢোলাহাট থানার পুলিশ।

[আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদে BJP’র গড়ে খুন TMC পঞ্চায়েত সদস্য, বোমা-গুলিবর্ষণের পর কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে