BREAKING NEWS

১২  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ২৭ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে হামলা, অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 12, 2018 10:19 am|    Updated: August 12, 2018 10:19 am

Diamond Harbour: BJP party office ransack

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একের পর এক বিজেপি পার্টি অফিসে ভাঙচুরের ঘটনায় উত্তপ্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনা৷ বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, ডায়মন্ডহারবার ও নোদাখালিতে দলীয় কার্যালয়ের ঢুকে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা৷ তৃণমূল নেতাদের ইন্ধনেই এই ঘটনা ঘটেছে বলেও অভিযোগ বিজেপির৷ পার্টি অফিস ভাঙচুরের ঘটনায় স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷

[সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণে অভিযুক্ত বিজেপি কর্মী, চাঞ্চল্য দক্ষিণ দিনাজপুরে]

অমিত শাহের সভায় যোগ দিতে  শনিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন এলাকার বিজেপি কর্মীরা কলকাতায় চলে আসেন৷ সভা সেরে রাতে আবারও নিজেদের এলাকায় ফিরে যান তাঁরা৷ প্রায় গভীর রাত পর্যন্ত ডায়মন্ডহারবারে দলীয় কার্যালয়েই ছিলেন বিজেপি কর্মীরা৷ প্রতিদিনের মতো আলোচনা সেরে দলীয় কার্যালয়ে তালা দিয়ে বাড়ি ফিরে আসেন তাঁরা৷ কিন্তু রবিবার সকালে এলাকায় শোরগোল পড়ে যায়৷ বিজেপি কর্মীদের দাবি, তাঁরা দেখেন দলীয় কার্যালয়ের দরজা খোলা রয়েছে৷ ভিতরে থাকা চেয়ার, টেবিল-সহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয়েছে৷ দরজাও প্রায় ভেঙে দেওয়া হয়েছে৷ এছাড়া দলের পতাকাও নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে৷ জেলা বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, রাতেই প্রায় ৫০-৬০ জন দুষ্কৃতী ওই দলীয় কার্যালয়ে ঢোকে৷ প্রত্যেকেরই মুখ কালো কাপড় দিয়ে বাঁধা ছিল৷ তারাই দলীয় কার্যালয়ে থাকা যাবতীয় আসবাব, কাগজপত্র ও পতাকা নষ্ট করেছে৷ জেলা বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, এই দুষ্কৃতীরা প্রত্যেকেই তৃণমূলের অঙ্গুলিহেলনেই এই কাজ করেছে৷ যদিও এই অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব৷ তাঁদের পালটা দাবি, বিজেপি এই কাজ করে তৃণমূলের উপর দায় চাপাচ্ছে৷ শুধুমাত্র দলের বিরুদ্ধে কুৎসা রটানোর জন্যই এমন অভিযোগ করছে বিজেপি৷ পদ্ম শিবির চক্রান্ত করেই এসব করছে বলেও দাবি তৃণমূল নেতৃত্বের৷

[চন্দ্রকোনায় ৫ তৃণমূল কর্মীকে কোপ, ধৃত বিজেপি নেতা-সহ ২]

একই ঘটনার সাক্ষী নোদাখালিও৷ অভিযোগ, ওই এলাকাতেও দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা৷ এক্ষেত্রেও তৃণমূলের বিরুদ্ধেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে বিজেপি নেতৃত্ব৷ তৃণমূলও অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ দুটি ঘটনাতেই স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷ তবে এখনও কেউই গ্রেপ্তার হয়নি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে