BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  রবিবার ৯ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

নির্বাচনে জনসচেতনতা বাড়াতে অভিনবত্ব ঝাড়গ্রামে, তৈরি ভোট উদ্যান

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: April 9, 2019 8:46 am|    Updated: April 9, 2019 8:46 am

An Images

সুনীপা চক্রবর্তী ,ঝাড়গ্রাম: নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে পছন্দের প্রার্থীকে সমর্থন করা গণতান্ত্রিক অধিকার। আমাদের বৃহৎ গণতন্ত্রে সেই অধিকার রক্ষা করা কতটা প্রয়োজনীয় সেবিষয়ে  নাগরিকদের সচেতন করতে নির্বাচন কমিশন নানা উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসন যে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে, তা একথায় নজিরবিহীন।

[আরও পড়ুন: আতঙ্ক কাটিয়ে ভোট দিন, বার্তা নিয়ে অযোধ্যা পাহাড়ে জেলাশাসক, পুলিশ সুপার]

ভোটদান করা প্রতিটি ভোটারের কাছে কতটা গুরুত্বপূরর্ণ তা বোঝাতে প্রর্দশনীর মাধ্যমে তুলে ধরা হচ্ছে সচেতনতামূলক নানা বিষয়। আর সেই কারণেই একটি  উদ্যান তৈরি করা হয়েছে ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসনের তরফে, যেখানে পুরোপুরি নির্বাচনের আবহ। ভোটের গুরুত্ব তুলে ধরতে এই রকম একটি উদ্যান দেশে প্রথম, দাবি প্রশাসনের আধিকারিকরা। ঝাড়গ্রাম শহরের জেলাশাসকের কার্যালয়ের সংলগ্ন এলাকায় গড়ে তোলা হয়েছে এই উদ্যানটি। সোমবার অনুষ্ঠানিকভাবে এটি উদ্বোধন করা হয়।

কী নেই সেই উদ্যানে? নির্বাচন প্রদর্শনী কক্ষটিতে বিভিন্ন কাট আউটের মাধ্যমে দেখানো হয়েছে নির্বাচনের সঙ্গে জড়িত নানা সামগ্রী। ফ্লাইং স্কোয়াডের গাড়ি, ভিভিপ্যাট, ইভিএম, ভোটগ্রহণ কেন্দ্র-সহ রয়েছে বিভিন্ন জিনিস। এছাড়াও আদর্শ ভোট গ্রহণকেন্দ্রটিও করা হয়েছে আকর্ষনীয়ভাবে। আদর্শ ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের বাইরে কাট আউট দিয়ে দেখানো হয়েছে ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে নানা ভাষা, নানা পরিধানে মানুষ, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ভোটাররা। বন্দুক হাতে রয়েছেন নিরাপত্তা বাহিনীও। আর ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের ভিতরে রয়েছে পোলিং এজেন্ট, প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় পোলিং অফিসার, ভিভিপ্যাট, ইভিএম মেশিনের কাটআউট।

[আরও পড়ুন: বড়মার সই নকল মামলায় জামিন শান্তনুর, সাময়িক স্বস্তির পর মমতাবালাকে কটাক্ষ]

এই নির্বাচন উদ্যানে সব থেকে বড় আকর্ষণ হল ‘মেজ গেম’। জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এটি হল একটি নির্বাচন বিষয়ক মানসিক সচেতনতামূলক খেলা। অর্থাৎ ঘুষ নিয়ে বা কোনও কিছু বিনিময়ে যাতে মানুষ নিজের ভোট বা মতমত  যেন না বদলান, সেই বিষয়টি নিয়ে সচেতন করা হয়েছে এই খেলাটির মাধ্যমে। উদ্যান প্রাঙ্গনের এক পাশে এই খেলার জন্য একটি বিশেষ প্যান্ডেলও করা হয়েছে। এই প্যান্ডেলের ভিতরটি অনেকটা গোলকধাঁধার মতো। সব মিলিয়ে এই পদ্ধতিতে মানুষের মধ্যে আগ্রহ এবং সচেতনতা বাড়বে বলেই আশাবাদী জেলা প্রশাসন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement