৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ব্যুরো: এনআরএস কাণ্ডে উত্তাল গোটা দেশ। কার্যত ভেঙে পড়েছে স্বাস্থ্যব্যবস্থা। হাসপাতাল থেকে ফিরে যেতে হচ্ছে রোগীাদের। এমতাবস্থায় ভিন্ন ছবি দেখা গেল রাজ্যের দুই প্রান্তে। বনধের সমর্থন করেও নিজের দায়িত্বে অবিচল বেশ কিছু চিকিৎসক। হাসপাতালের বাইরেই চেয়ার, টেবিল পেতে রোগীদের পরীক্ষা করছেন তাঁরা। তাঁদের ভূমিকায় খুশি রোগী ও রোগীর পরিজনেরা।

[আরও পড়ুনডাইনি অপবাদে মাকে ঘরছাড়া করে পুলিশের জালে ছেলে-বউমা]

এক সপ্তাহ হয়ে গিয়েছে। জুনিয়র ডাক্তারদের নিত্যনতুন শর্তে জটিলতা বেড়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার আন্দোলনকারীদের আলোচনায় বসার বার্তা দিলেও একাধিকবার তা ফিরিয়ে দিয়েছেন আন্দোলনকারী চিকিৎসকরা। অবশেষে সোমবার বিকেলে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন জুনিয়র চিকিৎসকরা। এরই মাঝে অন্য ভূমিকায় দেখা গেল বনগাঁ মহকুমা হাসপাতাল ও বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কয়েকজন চিকিৎসককে। জানা গিয়েছে, ১১ জুন থেকেই চিকিৎসকদের আন্দোলনে শামিল হয়ে বন্ধ রাখা হয়েছিল বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের আউটডোর। যদিও খোলা রাখা ছিল জরুরি বিভাগ। তবে বহির্বিভাগ বন্ধ থাকায় অধিকাংশ রোগীদেরই হাসপাতাল থেকে ফিরে যেতে হচ্ছিল। 

[আরও পড়ুনচিকিৎসকদের একটানা আন্দোলনের জের, বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু ২ শিশুর]

সোমবার সকালেও বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে গিয়ে খালি হাতে ফিরতে হয় একাধিক রোগীকে। এরপর হঠাৎই হাসপাতালের বাইরে চিকিৎসকদের অবস্থান মঞ্চে চেয়ার টেবিল পেতে চিকিৎসা শুরু করেন চিকিৎসকরা। একই ছবি দেখা যায় বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে। প্রতীক্ষালয়ে চেয়ার পেতে রোগী দেখেন চিকিৎসকরা। দীর্ঘদিন পর হলেও চিকিৎসকদের এই উদ্যোগে খুশি রোগীর ও রোগীর পরিবারের সদস্যরা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং