২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কুকুরের সেবায় অযত্ন! সারমেয়প্রেমীদের শাসানির জেরে জেরবার পুলিশ

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 4, 2020 12:35 pm|    Updated: March 4, 2020 1:38 pm

Dog lovers accused a couple for their negligence

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: উত্তরপাড়ায় কুকুরপ্রেমীদের ঠেলায় নাজেহাল পুলিশ। চোর ডাকাতের চেয়েও পুলিশের কাছে এখন মহা বিড়ম্বনা সারমেয়প্রেমীদের নিয়ে। এক কুকুরপ্রেমী তাঁর কুকুরকে অযত্ন করছেন। ঠিকমতো চিকিৎসা করাচ্ছেন না এই অভিযোগ তুলে থানার দ্বারস্থ প্রতিবেশী কুকুরপ্রেমীর দল। এই কুকুরপ্রেমীদের ভালবাসার ঠেলায় রীতিমতো দিশেহারা পুলিশ। ফাঁপড়ে পড়ে তারা বুঝতে পারছেন না কী করবেন। অগত্যা দুই পক্ষকেই সামলাতে তাদের বুঝিয়ে বাড়ি পাঠানো হলেও একে অপরের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে তারা সর্বদাই খড়গহস্ত হয়ে রয়েছেন।

গোলমালের সূত্রপাত একটি পোষ্যকে কেন্দ্র করে। উত্তরপাড়ার দম্পতি সুকান্ত পাল ও মৌসুমী পাল দীর্ঘ তিন বছর ধরে রাস্তার একটি কুকুরের যত্ন নিচ্ছেন। কুকুরটি তাদের অত্যন্ত আদরের। গত তিনমাস ধরে কুকুরটি অসুস্থ। তার লোম উঠে গিয়ে চামড়ার গোলাপি রং বেরিয়ে পড়েছে। চামড়ায় ইনফেকশন ধরা পড়েছে। এর জন্য তারা কুকুরটি চিকিৎসাও করাচ্ছেন। নিয়মিত ইঞ্জেকশন দিচ্ছেন, ওষুধ খাওয়াচ্ছেন। ওই দম্পতির অভিযোগ, হঠাৎ করে সোমবার তাঁর বাড়িতে প্রায় জনা কুড়ি কুকুরপ্রেমী এসে হাজির হন।তাঁরা রীতিমতো আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে বলেন, আপনারা কুকুরটাকে ফ্যানভাত খাইয়ে মেরে ফেলতে চাইছেন। চিকিৎসা করাচ্ছেন না। দম্পতির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করা হবে বলে হুমকিও দেয় তারা। এরপর ওই কুকুরপ্রেমীর দল কুকুরের ছবি তুলে স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেওয়ার পর পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে যায়।

[আরও পড়ুন:সাতদিনে দু’বার, বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফের নিখোঁজ রোগী]

দম্পতি জানান, তাঁদের ছেলের অত্যন্ত প্রিয় কুকুরটি। ছেলে গঙ্গায় স্নান করতে গেলে তাদের পোষ্যটিও ছেলের পিছনে পিছনে যায়, আর গঙ্গায় স্নান করে। তাদের ধারণা গঙ্গায় স্নান করার পরই পোষ্যটি এই ধরনের ইনফেকশন হয়েছে।গঙ্গার জলে থাকা কোনও নোংরা থেকেই এই ইনফেকশন। এদিকে নাছোড়বান্দা কুকুরপ্রেমীর দল সোমবারই উত্তরপাড়া থানায় গিয়ে এর বিহিত চেয়ে মৌখিক অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতেই মঙ্গলবার সকালে ওই দম্পতি থানায় গেলে পুলিশ আধিকারিকরা কুকুরটিকে কোনও পশু হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়ে তার চিকিৎসা সংক্রান্ত নথি দেখিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু এরপরও স্বস্তি নেই পুলিশ কর্মীদের। কারণ বছর দু’য়েক আগে উত্তরপাড়াতেই রাস্তার একটি কুকুর পাঁচটি বাচ্চার জন্ম দেওয়ার পর দু’টি বাচ্চা চুরি হয়ে গিয়েছিল। সেই কুকুর চুরি যাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেই সময় রীতিমতো ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটেছিল এলাকায়। সেই কথা মনে করে কপালে ভাঁজ পুলিশের।

[আরও পড়ুন:দক্ষিণবঙ্গে আজও ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে ভারী বৃষ্টি, চলবে সপ্তাহজুড়ে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে