৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘তিতলি’র প্রভাবে পণ্ড পুজোর উদ্বোধন, মাথায় হাত উদ্যোক্তাদের

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: October 13, 2018 7:52 pm|    Updated: October 13, 2018 7:52 pm

Durgapur Puja organizers worried over Cyclone Titli

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুর: ‘তিতলি’র প্রভাবে পিছিয়ে গেলে দুর্গাপুরের একটি বিগ বাজেটের পুজোর উদ্বোধন৷ চতুর্থীর দিন উদ্বোধনের কথা থাকলেও তা পিছিয়ে পঞ্চমীর সন্ধ্যায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে জেলা জুড়ে ‘তিতলি’র প্রভাবে ঝোড়ো হাওয়া ও তুমুল বৃষ্টি শুরু হয়৷ এখনও বিক্ষিপ্ত ভাবে চলছে বৃষ্টি৷ গত তিনদিন রোদের দেখা মেলেনি৷ তাই অধিকাংশ মণ্ডপই তৈরির কাজ শেষ হয়নি৷ লাগাতার না হলেও ঝিরঝিরে বৃষ্টি লেগেই রয়েছে৷ বেশিরভাগ মণ্ডপের সামনের অংশে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চলছে শেষ বেলার কাজ৷

[‘ছেলেই যখন নেই, তখন কীসের পুজো?’ উৎসবেও শোকের ছায়া দাড়িভিটে]

দুর্গাপুরের অন্যতম বিগ বাজেটের পুজো ফুলঝোড় সর্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটির পুজো৷ চতুর্থীর দিন উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল৷ কিন্তু, মণ্ডপ তৈরি না হওয়ায় পিছিয়ে দেওয়া হয় উদ্বোধন৷ ফুলঝোড় সর্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটির এবারে ‘বৃদ্ধাশ্রম’ থিমকে ফুটিয়ে তুলছে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে৷ প্রায় ৭০ দিন ধরে চলছে মণ্ডপ নির্মাণের কাজ৷ গত তিনদিন ধরে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি৷ কিন্তু, ‘তিতলি’ অসুর  ভেস্তে দিয়েছে প্রস্তুতি৷ পুজো কমিটির দাবি,  এখনও মণ্ডপের ৩০ শতাংশ কাজ বাকি৷ চতুর্থীর সারাটা দিনও পরিশ্রম করলেও গোটা মণ্ডপ প্রস্তুত হবে না৷ সারা রাতেও কাজ চলবে বলে দাবি করেছেন উদ্যোক্তারা৷ এবারের ২৭ তম বর্ষে ফুলঝোড় সর্বজনীন দুর্গাপুজোর বাজেট প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা৷ কিন্তু, ‘তিতলি’র প্রভাবে চরম বিড়ম্বনায় পুজোর উদ্যোক্তারা৷ মণ্ডপের বাইরে তৈরি করা কারুকার্যও প্রায় নষ্ট হয়ে গিয়েছে৷ নতুন করে তৈরি হবে সেইসব শিল্প৷ তাই সময় লাগবে৷ অত্যন্ত ১৮ ঘণ্টা সময় লাগবে বলেই মনে করছেন উদ্যোক্তরা৷ তাই বাধ্য হয়েই পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে উদ্বোধন৷

[গুলিবিদ্ধ শুভেন্দু অধিকারীর নিরাপত্তারক্ষী, তদন্তে পুলিশ]

চতুর্থীর দিন অর্থাৎ শনিবারও সারাদিন ধরেই বৃষ্টি হয়েছে দুর্গাপুরে৷ যদিও দুর্গাপুরের অন্যান্য পুজোর উদ্বোধন নির্ধারিত সময়ে অর্থাৎ চতুর্থীর দিনেই৷ ফুলঝোড় সর্বজনীন দুর্গাপুজা কমিটির সম্পাদক শ্যামল রায় বলেন, “জোড় করে মণ্ডপ শেষ করে দেওয়া যেত৷ কিন্তু, তাতে মণ্ডপ কর্মীরা দুর্ঘটনার মুখে পড়তে পারত৷ তাই তাড়াহুড়ো না করে উদ্বোধনের দিন পিছিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছি আমরা৷’’ ‘বৃদ্ধাশ্রমে’র উদ্বোধনে থাকছেন বাঁকুড়ার একটি বৃদ্ধাশ্রমের আবাসিকরা৷ তাদেরও সূচনা দেওয়া হয়েছে৷ পঞ্চমীর দিন সন্ধ্যায় বৃদ্ধাশ্রমের আবাসিকরাই উদ্বোধন করবেন৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে