Advertisement
Advertisement
CPM

‘বেশি ট্যাঁফো কোরো না, টেংরি খুলে দিতে আমরাও জানি’, বনগাঁয় হুঁশিয়ারি মীনাক্ষীর

পালটা জবাবে কী বলল তৃণমূল?

DYFI state secretary Minakshi Mukherjee threats TMC from Bongaon | Sangbad Pratidin
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:January 26, 2023 9:38 pm
  • Updated:January 26, 2023 9:48 pm

জ্যোতি চক্রবর্তী, বনগাঁ: পঞ্চায়েত নির্বাচনের (Panchayet Election) আগে সবকটি রাজনৈতিক দলই সক্রিয়ভাবে মাঠে নামছে। যুব প্রজন্মকে সামনে রেখে লড়াইয়ে ঝাঁপাচ্ছে সিপিএম (CPM)। আর নেতাদের তপ্ত কথায় এখন থেকেই যুদ্ধের আঁচ। বনগাঁয় যুব ফেডারেশন কর্মীদের সভা থেকে তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি দিলেন সিপিএমের যুবনেত্রী মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায় (Minakshi Mukherjee)। বললেন, ”বেশি ট্যাঁফো কোরো না, টেংরি খুলে দিতে আমরাও জানি।”

গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার বনগাঁর (Bongaon) গোপালনগরে সভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্য গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশনের (DYFI) সম্পাদিকা মীনাক্ষী মুখোরপাধ্যায়। বনগাঁ থেকে যুব ফেডারেশনের কর্মীরা বাইক মিছিল করে সভাস্থলে নিয়ে আসেন তাঁকে।  মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজ্য সরকারকে একাধিক বিষয় নিয়ে আক্রমণ করেন মীনাক্ষী। তিনি বলেন, ”সাধারণ মানুষকে ভয় দেখানো হচ্ছে, কাজ বন্ধ করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হচ্ছে। তাঁদের উদ্দেশ্যে এই সভামঞ্চ থেকে বলতে চাই বেশি ট্যাঁফো কোরো না, টেংরি খুলে দিতে আমরাও জানি।”

Advertisement

[আরও পড়ুন: ‘দেশের জন্য প্রাণ দিতে চাই’, সাধারণতন্ত্র দিবসে বাড়িতে তেরঙ্গা তুলে ঘোষণা প্রাক্তন জঙ্গির]

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে মীনাক্ষী বলেন, ”এখন আমাদের জাতীয় পাখি পরিবর্তন হয়েছে সাদা শাড়ি মাথায় ঝুটি কু কু করছে এখন জাতীয় পাখি।” এছাড়া জেলে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সরস্বতী পুজোর ইচ্ছেপ্রকাশ নিয়েও তিনি কটাক্ষ করেছেন। সঙ্গে আরও দুই প্রাক্তন শিক্ষাকর্তা সুবীরেশ ভট্টাচার্য ও মানিক ভট্টাচার্যের প্রতিও আক্রমণ শানিয়েছেন সিপিএমের যুবনেত্রী।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ১৮ শতাংশ জিএসটির গেরো, রপ্তানির দৌড়ে পিছিয়ে পড়ছে ভারতের পানপাতা]

 মীনাক্ষীর এহেন হুমকি, কটাক্ষকে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল। বনগাঁ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) সভাপতি বিশ্বজিৎ দাসের পালটা জবাব, ”একবার সিপিএমের দেখে নেওয়া উচিত ৩৪ বছরে যখন সরকারের ছিলেন তখন মানুষ ভোট দিতে যেতে পারতেন না। তাদের মুখে এটা মানায় না। ভোট ৫% থেকে ৬% ভোট কী করে নিয়ে যাওয়ার যায় সেটার জন্য কাজ করুক। বাচ্চা মেয়ে অনেক বাকি আছে পলিটিক্সের।”

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ