২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

যুবককে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ, কাঠগড়ায় পূর্ব বর্ধমানের জেলা সভাধিপতি

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: February 29, 2020 2:24 pm|    Updated: February 29, 2020 2:24 pm

East Burdwan TMC leader's name appear in youth suicide

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: খণ্ডঘোষের দুবরাজহাটের পবিত্রকুমার ঘোষের আত্মহত্যার ঘটনায় সুবিচার চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁর মা কল্পনা ঘোষ। শুক্রবার বর্ধমান আদালতে তিনি অভিযোগ দায়ের করেছেন। তাঁর অভিযোগ, পরিকল্পনা করে তাঁর ছেলেকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া হয়েছে। আর এই ঘটনায় পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধাড়া, এক ঠিকাদার-সহ চারজন আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছেন বলে আদালতে অভিয়োগ করেছেন তিনি। এদিনই বর্ধমান আদালতের সিজেএম রতনকুমার গুপ্তা পরিকল্পনা করে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার ধারায় মামলা রুজু করে খণ্ডঘোষ থানার ওসিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

গত ১৩ জানুয়ারি রাতে বাড়িতেই কীটনাশক খেয়েছিলেন পবিত্র (২৬)। পরদিন সকালে তাঁকে অচৈতন্য অবস্থায় দেখতে পেয়ে পরিবারের লোকজন বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। কল্পনাদেবীর আইনজীবী স্বপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ঘটনার বিষয়ে খণ্ডঘোষ থানা, পুলিশ সুপারকে জানিয়েও কাজ না হওয়ায় বাধ্য হয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন। কল্পনাদেবী জানান, বেশ কিছুদিন ধরেই তাঁর ছেলের উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হচ্ছিল। এমনকী তাঁর ছেলেকে মারধরও করা হয়েছিল সম্পর্কের টানাপোড়েনের জেরে। ঘটনার আগের দিনও তাঁর ছেলেকে বর্ধমানে ডেকে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হয়েছিল। বাড়ি ফিরে কান্নায় ভেঙে পড়ে। সেদিন রাতেই পবিত্র কীটনাশক খেয়ে নেয়।

[আরও পড়ুন: মায়ের সঙ্গে সাদ্দামের ঘনিষ্ঠতা মানতে পারছিল না রিয়া, হলদিয়া কাণ্ডে নয়া তথ্য পেল পুলিশ]

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সভাধিপতি। সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি দাবি করেছেন, সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ ও সাজানো ঘটনা। তৃণমূলের খণ্ডঘোষের ব্লক সভাপতি অপার্থিব ইসলাম সংবাদমাধ্যমের কাছে জানান, আদালতের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। যে সব অভিযোগ তোলা হচ্ছে তা মিথ্যা। তৃণমূলের তরফে অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করা হয়েছে। পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, এই বিষয়ে তাঁদের কাছে কেউ কোনও অভিযোগ করেননি। আদালতের থেকেও কোনও নির্দেশ এদিন পর্যন্ত আসেনি। আদালতের নির্দেশ এলে সেই অনুযায়ী পদক্ষেপ করা হবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে