৫ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ২১ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রাজ কুমার, আলিপুরদুয়ার: আষাঢ় মাস শেষ হতে চললেও এখনও বৃষ্টির জন্যে হাপিত্যেশ করেই বসে রয়েছে দক্ষিণবঙ্গ। অস্বস্তিকর আবহাওয়া থেকে বিরাম নেই। মাঝে মধ্যে ছিটেফোঁটা বৃষ্টি হলেও তাতে তাপমাত্রার পরিবর্তন হচ্ছে না। ঠিক উলটো ছবি উত্তরবঙ্গে। প্রবল বৃষ্টিতে ভেসে যাচ্ছে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলি। বুধবার সেই বৃষ্টিতেই মাততে দেখা গেল দাঁতালকে। তার বৃষ্টি উপভোগের জেরে ভোগান্তি পোহাতে হল বহু মানুষকে।

[আরও পড়ুন: স্কুলের শৌচাগারে তালা, পাঁচিল টপকে শৌচ করতে গিয়ে পড়ে হাত ভাঙল পড়ুয়ার]

সকাল থেকেই প্রবল ধারায় বৃষ্টি হচ্ছে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার-সহ উত্তরের জেলাগুলি। তার মধ্যেই যাত্রী নিয়ে কোচবিহার থেকে জয়গাঁর উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল একটি বাস। কিছুটা পথ যেতেই আচমকা ব্রেক কষলেন চালক। স্বাভাবিকভাবেই হকচকিয়ে যান যাত্রীরা। কিছু বুঝে ওঠার আগে সামনের দিকে নজর পড়তেই বাকরুদ্ধ সকলে। চোখের সামনে দাঁড়িয়ে গজরাজ। মনের সুখে বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে রাস্তা দিয়ে হেঁটে বেড়াচ্ছে সে। আর তাকে পাশ কাটিয়ে যায় কার সাধ্য? অগত্যা আধ ঘণ্টারও বেশ কিছু সময় যাত্রীদের নিয়ে বাসে বসেই গজরাজের কাণ্ডকারখানা দেখলেন যাত্রীরা। অনুমান, বৃষ্টি উপভোগ করতেই এদিন জঙ্গল থেকে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছিল হাতিটি।

বৃষ্টি কিছুটা কমলে ধীরে ধীরে ফের জঙ্গলের পথে পা বাড়ায় দাঁতালটি। এরপরই যাত্রীদের নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা হন বাসচালক। প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে কার্যত আতঙ্ক ছড়িয়েছে উত্তরবঙ্গে। ধস নেমেছে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায়। মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে। বিভিন্ন রাস্তায় বড় ফাটল দেখা দিয়েছে। যেকোনও সময় তা ধসে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আতঙ্কিত পর্যটকরাও৷ সেই পরিস্থিতিতে গজরাজের কীর্তি হাসি ফুটিয়েছে অনেকের মনেই।

[আরও পড়ুন‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি নিয়ে স্কুলে পড়ুয়াদের হাতাহাতি, সামাল দিতে লাঠিচার্জ পুলিশের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং