৭ ফাল্গুন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শংকর কুমার রায়, রায়গঞ্জ: ফের উত্তপ্ত দাড়িভিট। দুই ছাত্রের মৃত্যুর সুবিচারের দাবিতে দাড়িভিট স্কুলের পাশে পোস্টার লাগানো  হয়েছিল। সোমবার সেই পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ। তারই প্রতিবাদে মৃত দুই ছাত্রের পরিবারের সদস্যরা বিক্ষোভ দেথাতে থাকেন। এই ঘটনা ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায়। রাস্তা অবরোধ করে, টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা এই পোস্টার ছিঁড়ে দিয়েছেন। যদিও জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, “পোস্টারগুলি যে জমিতে দেওয়া হয়েছিল, সেটি ব্যক্তিগত জমি। মালিক জমি উঁচু করার কাজ শুরু করেছেন। তাই পোস্টার সরিয়ে দিয়েছেন। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।”  

২০১৮ সালে সেপ্টেম্বরে গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিল দাড়িভিট স্কুলের দুই ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মণ। সেই ঘটনা ঘিরে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছিল। ছাত্রদের মৃত্যুর ঘটনার CBI তদন্তের দাবিতে এখনও সরব এলাকাবাসী। সেই দাবিতে স্কুলের পাশের একটি জমিতে পোস্টার দেওয়া হয়েছে। সোমবার সকালে কয়েকটি পোস্টারগুলি ছিঁড়ে ফেলে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ায়। মৃত ছাত্রদের পরিবারের অভিযোগ, রাজেশ-তাপস এখনও সুবিচার পায়নি। তাহলে কেন পোস্টারগুলি ছিঁড়ে ফেলা হল? এই ঘটনার প্রতিবাদে স্কুলের সামনের রাস্তায় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাঁরা। এমনকী দিনভর রাস্তা অবরোধ করে রাখেন তাঁরা। এমনকী রাতের দিকে টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবাদ দেখাতে থাকেন বিক্ষোভকারীরা। তাঁদের কথায়, স্থানীয় তৃণমূল নেতা কার্তিক বৈরাগী পোস্টারগুলি ছিঁড়ে ফেলে দিয়েছে।

[আরও পড়ুন : ছাত্র সংসদ কার দখলে? কর্তৃত্ব নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে রণক্ষেত্র দিনহাটা কলেজ]

ঘটনাপ্রসঙ্গে তাপসের মা মঞ্জুদেবী অভিযোগ করে বলেন, “আমাদের ছেলেরা এখনও সুবিচার পায়নি। CBI তদন্তের দাবিতে আন্দোলন করছি। এর মাঝেই কেন পোস্টার ছিঁড়ে দেওয়া হল?” জানা গিয়েছে, স্কুলের পাশে একটি জমিতে পোস্টারগুলি দেওয়া হয়েছিল। সেই জমির মালিক স্থানীয় তৃণমূল নেতা কার্তিক বৈরাগী। তাঁর দিকে অভিযোগের আঙুল উঠেছে। এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইলাল আগরওয়াল বলেন, “ওটা ব্যক্তিগত মালিকাধীন জমি। তিনি এতদিন পর জমি উঁচু করছেন। তাই পোস্টার সরিয়ে দিয়েছেন। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।” দাড়িভিট স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক অনিল মণ্ডল বলেন, “আজ আমি স্কুলে যাইনি। রায়গঞ্জে এসেছি। শুনেছি জায়গা নিয়ে গণ্ডগোল হয়েছে।” ইসলামপুর পুলিশ সুপার শচীন মক্কার বলেন, “খবর পেয়েছি। বাহিনী পাঠানো হবে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং