BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে বিধিনিষেধের জের, বাড়তে চলেছে বেসরকারি বাসের ভাড়া

Published by: Paramita Paul |    Posted: May 7, 2020 10:07 pm|    Updated: May 7, 2020 10:07 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

নব্যেন্দু হাজরা: বাড়তে চলেছে বেসরকারি বাসের ভাড়া। গ্রিন জোনে থাকা জেলায় অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই বাসে চড়তে হবে যাত্রীদের। সাত টাকার পরিবর্তে সর্বনিম্ন কত টাকা ভাড়া হবে তা অবশ্য ঠিক হয়নি। কিন্তু দিন দুয়েকের মধ্যে কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে অতিরিক্ত ভাড়াতেই এই পরিষেবা চালু হতে চলেছে। অন্তত পরিবহণ দপ্তরসূত্রে তেমনই ইঙ্গিত। যতদিন এই অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ছুটবে বাস, ততদিন অতিরিক্ত এই ভাড়া দিতে হবে যাত্রীদের। বেসরকারি বাসে ভাড়া বাড়ানো হলেও অবশ্য সরকারি বাসের ক্ষেত্রে তেমন কিছু ধার্য হচ্ছে না। আজ শুক্রবার থেকে গ্রিন জোনের কোনও কোনও জেলায় সরকারি বাস পরিষেবা সাধারণ যাত্রীদের জন্য চালু হবে। ভাড়া থাকছে একই। উত্তরবঙ্গে এনবিএসটিসি এবং দক্ষিণবঙ্গে এসবিএসটিসি এই বাস চালাবে।

লকডাউনের মধ্যেই গ্রিন জোনে থাকা জেলাগুলিতে যাত্রীসুবিধায় বেসরকারি বাস নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু বাসমালিকরা একই ভাড়ায় কম যাত্রী নিয়ে গাড়ি চালাতে অস্বীকার করায় তা আর নামেনি। প্রশাসনের সঙ্গে দফায় দফায় বাসমালিক সংগঠনের বৈঠক হলেও জট কাটেনি। ট্রান্সপোর্ট ডিরেক্টর বিশ্বজিৎ দত্ত এর পরই জেলা প্রশাসনের কর্তাদের বাস সংগঠনের সঙ্গে বৈঠক করার নির্দেশ দেন। বৃহস্পতিবার সাতটি জেলার জেলাশাসকের সঙ্গে বাসমালিকরা বৈঠক করেন। সেখানে তাঁরা বর্তমান ভাড়ার চাইতে তিনগুণ দাবি করেন বাস নামানোর জন্য। কিন্তু প্রশাসন তাতে রাজি হয়নি। তবে ভাড়া যে বাড়বে তা এক প্রকার স্থির হয়েছে। সেটা ১০, ১২ অথবা ১৪ টাকা হতে পারে। সঠিক সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। এমনিতেই দোকান-বাজার থেকে অটো-টোটো। গ্রিন জোনে থাকা জেলাগুলিতে অধিকাংশ পরিষেবাই চালু হয়েছে।

[আরও পড়ুন : অভুক্তদের জন্য ‘ফ্রি হোটেল’, মালদহের বালুচরে সকলের পাতে পড়ল ডিম-ভাত]

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের গ্রিন জোনগুলিতে বেসরকারি বাস চালানোর ছাড়পত্র দিয়েছিলেন। কিন্তু পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন, বাসে কুড়ি জনের বেশি যাত্রী তোলা যাবে না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আর তাতেই পুরনো ভাড়ায় মাত্র কুড়ি জন যাত্রী তুলতে অস্বীকার করেন বাসমালিকরা। তাই রাজ্য সরকারের নির্দেশ সত্ত্বেও বাস নামেনি। ফাঁপরে পড়েন গ্রিন জোনের জেলার যাত্রীরা। তাঁদের কথা ভেবেই তার পর সরকারি বাস নামানোর সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু রাজ্যে বেশিরভাগ যাত্রী পরিষেবাই বেসরকারি বাসের উপর নির্ভরশীল। তা ছাড়া কয়েক লক্ষ মানুষের রুজি-রোজগার জড়িয়ে রয়েছে এই শিল্পের উপর। সে কথা মাথায় রেখেই এই ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত বিবেচনা করা হচ্ছে। কত বাড়বে তা ঠিক না হলেও কিছু যে বাড়বে তা ঠিক হয়েছে। বাস মিনিবাস সমন্বয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাহুল চট্টোপাধ্যায় বলেন, “সরকার জানিয়েছে, ভাড়াবৃদ্ধির বিষয়টি দেখা হচ্ছে। সরকার গ্রিন জোনে বর্ধিত ভাড়া কত করে তা দেখেই বাস নামানোর সিদ্ধান্ত।”

[আরও পড়ুন : লকডাউনের জের, রক্ত না পেয়ে উলুবেড়িয়ায় মৃত থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত তরুণী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement