BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

দলীয় কর্মীকে ‘হুমকি’, অভিযোগে বাবুলের বিরুদ্ধে জোড়া মামলা দায়ের

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: September 20, 2018 12:02 pm|    Updated: September 20, 2018 12:02 pm

FIR against BJP’s Babul Supriyo

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: মেজাজ হারিয়ে সরকারি অনুষ্ঠানে বিতর্কিত মন্তব্য করার দায়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়ের বিরুদ্ধে থানায় জোড়া অভিযোগ দায়ের৷ হীরাপুর ও আসানসোল থানায় অভিযোগ জমা পড়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ স্থানীয় স্নেহাশিস বন্দ্যোপাধ্যায় ও অমিতাভ ভট্টাচার্য নামে দুই ব্যক্তি পৃথক থানায় অভিযোগ জানান বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷ তবে, থানায় অভিযোগ দায়ের হলেও এখনই ভাঙতে নারাজ বিজেপি শিবির৷ উলটে, তৃণমূলের দিকে আঙুল তুলে ‘চক্রান্তে’র অভিযোগ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর৷

[স্বপ্নাদেশে পাওয়া দুর্গামূর্তিতেই শুরু মিঠানির চক্রবর্তী বাড়ির পুজো]

নিজের লোকসভা কেন্দ্র আসানসোলে প্রতিবন্ধীদের একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে প্রকাশ্যে এক ব্যক্তিকে হুমকি দেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী৷ মেজাজ হারিয়ে বলে ফেললেন, “আর একটু নড়াচড়া করলে আপনার পা ভেঙে হাতে ক্র্যাচ ধরিয়ে দেব।” মূল ঘটনাটি মঙ্গলবারের। প্রতিবন্ধীদের একটি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন সাংসদ বাবুল। ‘সামাজিক অধিকার শিবির’ নামের ওই অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধীদের জন্য হুইলচেয়ার বিলি করার কথা ছিল বাবুল সুপ্রিয়র। প্রতিবন্ধীদের জন্য অন্যান্য সরঞ্জামও বিলি করা হয় ওই অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠান মঞ্চে যখন বাবুল সুপ্রিয় বক্তব্য রাখছেন, তখন দর্শকদের মধ্যে থেকে এক ব্যক্তি বারবার চলাফেরা করছিলেন বলে অভিযোগ। ওই ব্যক্তির হাঁটাচলায় নাকি বক্তব্য বলতে অসুবিধা হচ্ছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর। বক্তব্য চলাকালীন ওই ব্যক্তিকে একবার স্থির হয়ে দাঁড়ানোরও নির্দেশ দেন আসানসোলের সাংসদ। কিন্তু ওই ব্যক্তি মন্ত্রীর কথা না শুনে ফের হাঁটাচলা শুরু করেন। আর তাতেই মেজাজ হারিয়ে ওই বিতর্কিত মন্তব্য করেন বাবুল৷

[জমি বিক্রিতে নারাজ, বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যুবককে খুন দুষ্কৃতীদের]

পুলিশ কমিশনার লক্ষ্মীনারায়ণ মীনা বলেন, অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এই ঘটনা নিয়ে বাবুল বলেন, ‘‘পুরোটাই প্লে অ্যাকটিং চলছিল৷ মজা করে কথা বলছিলাম৷  অনুষ্ঠানটায় কিছুটা বিশৃঙ্খলা ছিল৷ আমি মজার ছলে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনার চেষ্টা করছিলাম৷ ওখানে যাঁরা ছিলেন, তাঁরা সবাই জানেন৷ সবাই মিলে হাততালি দিচ্ছিলেন, মজা করছিলেন৷ সেই কথোপকথন থেকে একটা অংশ কেটে নিয়ে দেখানো হচ্ছে৷ এতে আমার কিচ্ছু বলার নেই৷ মিডিয়া মিডিয়ার কাজ করছে, আমি আমার কাজ করছি৷’’

[খবরের জের, বারাকপুরের সহায়-সম্বলহীনা বৃদ্ধার পাশে অভিষেক]

বাবুলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ প্রসঙ্গে জেলা আইটি সেলের দায়িত্বে থাকা সন্তোষ ভার্মা বলেন, ‘‘রাজনীতি করার জন্য এরকম করা হচ্ছে৷ অতীতেও বাবুলদার বিরুদ্ধে মিথ্যা অস্ত্র মামলা করা হয়েছিল৷ এর পেছনে তৃণমূল নেতৃত্বের হাত রয়েছে৷ যাঁকে বলা হয়েছে, সে আমাদের দলীয় কর্মী৷ তাঁর কিন্তু কোনও অভিযোগ নেই৷’’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে