৩০ আশ্বিন  ১৪২৮  রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ডানলপের বস্তিতে অগ্নিকাণ্ড, সংলগ্ন সড়ক ও রেলপথে ব্যাহত যান চলাচল

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 12, 2019 2:00 pm|    Updated: February 12, 2019 4:34 pm

Fire broke out at slum are in Dunlop

সংবাদ প্রতিনিধি ডিজিটাল ডেস্ক: ঘোলার প্লাস্টিক কারখানায় বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের আগুন ডানলপে। এদিন দুপুরে বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ের পাশে রাস্তার ওপর নর্দার্ন পার্কের কাছে একটি বস্তিতে আচমকাই আগুন লেগে যায়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে পাশের আবাসন এবং অস্থায়ী বাড়িতে। বিরাট এলাকা জুড়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে আগুন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকলের ৪টি ইঞ্জিন। পরিস্থিতি জটিল হওয়ায় আরও কয়েকটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। অন্তত তিনঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। হতাহতের খবর নেই। ঘটনাস্থলের পাশেই রেললাইন। বড় বিপদ এড়াতে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে কিছুক্ষণের জন্য ট্রেন চলাচল ব্যাহত হয়েছে শিয়ালদা-ডানকুনি শাখায়।

বিধায়ক খুনের জেরে তৎপর প্রশাসন, বাড়ল জনপ্রতিনিধিদের নিরাপত্তা

বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ের পাশে কয়েকটি অস্থায়ী বাড়ি এবং তার পাশে একটি ঝুপড়ি। সবে তখন বেলা গড়িয়েছে। আচমকাই বস্তি থেকে দাউদাউ করে আগুন জ্বলতে দেখেন পথচলতি মানুষজন। তাঁরাই দুর্ঘটনা অন্যদের নজরে আনেন। সেসময় ওই অস্থায়ী বাড়িগুলিতে কাজ করছিলেন কয়েকজন। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন তাঁরা। ততক্ষণে আগুন ছড়িয়ে পড়েছে অনেকটাই। ঝুপড়ির ঘরগুলি পুড়তে শুরু করেছে। আগুন ছড়িয়েছে পাশের একটি আবাসনেও। ইতিমধ্যেই আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় দমকলের ৪টি ইঞ্জিন। শুরু হয় আগুন নেভানোর কাজ। আবাসন থেকে দ্রুত লোকজনকে নিরাপদে বাইরে বের করে আনেন দমকল কর্মীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় বেলঘরিয়া থানার পুলিশ ও ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেট। গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে তারা। নিজে দাঁড়িয়ে থেকে তার তদারকি করেন ব্যারাকপুরের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার। রাস্তার ওপর এমন অগ্নিকাণ্ডের জেরে থমকে যায় যান চলাচল। নিরাপত্তার স্বার্থে বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ের একাংশ বন্ধ করে দেওয়া হয় ট্রাফিকের তরফে। আরও একদিকে, যেখানে আগুন লেগেছে, তার পাশেই রয়েছে রেললাইন। রেলের ওভারহেডে তারে কোনওভাবে আগুন লাগলে, ভয়ঙ্কর বিপদের আশঙ্কা। তাই বিপদ এড়াতে রেল সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। ফলে শিয়ালদা-ডানকুনি শাখায় স্তব্ধ হয়ে যায় রেল চলাচল। শেষ পর্যন্ত দমকলের ১০টি ইঞ্জিনের সাহায্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। দমকলের প্রাথমিক অনুমান, সিলিন্ডার ফেটে এত বড় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তদন্তে নেমেছে দমকল, পুলিশ।

অপহরণের গল্প ফেঁদে উধাও পুরুলিয়ার ‘নিখোঁজ’ বিজেপি নেতা!

এদিকে, সোমবার উত্তর ২৪ পরগনার ঘোলার প্লাস্টিক কারখানায় বড়সড় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন খোঁজ মেলেনি বেশ কয়েকজন শ্রমিকের। গতকাল থেকে প্রায় দেড়দিনের চেষ্টায় আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। দমকল সূত্রে খবর, কারখানার ভিতরে ঢুকে তল্লাশি চালানোর। তাহলে কেউ আটকে থাকলে, উদ্ধার করা সম্ভব হবে। তবে এই পরিস্থিতিতে কেউ এখনও জীবিত রয়েছেন কি না, তা নিয়েও সন্দেহ জাগছে। শ্রমিক পরিবারগুলির কারখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ তুলছে। এদিন কারখানার গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখান পরিবারের সদস্যরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement