BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রেশন নিয়ে ভুল তথ্য দিচ্ছেন রাজ্যপাল, টুইটে বেনজির আক্রমণ খাদ্যমন্ত্রীর

Published by: Paramita Paul |    Posted: May 14, 2020 9:29 pm|    Updated: May 14, 2020 10:36 pm

An Images

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: সম্প্রতি এফসিআই ও নাফেডের পাঠানো চাল ও ডালের হিসাব তুলে ধরে একদিন আগে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় টুইট করেন। তাতে বলেছিলেন, জুন মাসে রাজ্য কী ধরনের ডাল চায় তা জানাতে হবে। তাতে প্রশ্ন উঠেছিল রাজ্যকে পাঠানো নাফেডের চিঠি নিয়ে। কারণ এপ্রিলের বরাদ্দ ডাল পাঠিয়ে নাফেড তো আগেই জানিয়েছে তারা রাজ্যের পছন্দমতো মুসুর বা মুগ ডাল আর দিতে পারবে না। কারণ মুসুরের উৎপাদন নেই। মুগ ডাল ভাঙানোর কল খোলা নেই। তবে কি ফের নাফেড নতুন করে কিছু জানাল? এখানেই রাজ্যপালের টুইটের প্রতিবাদ করে বৃহস্পতিবার খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেছেন, “ভুল তথ্য পরিবেশন করছেন। উনি মিথ্যাবাদী।”

রাজ্যপাল আগেরদিন যে টুইটটি করেছিলেন, তাতে লিখেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনার মাধ্যমে রেশনে মাথাপিছু ৫ কেজি চাল ও পরিবারপিছু ১ কেজি ডাল বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে। এর পরেই তথ্য দিয়ে লেখেন ইতিমধ্যে এফসিআই ৫৭০২৭৭.৩৪০ মেট্রিক টন চাল ও নাফেড ১৪ হাজার ৫২৯ মেট্রিক টন ডাল সরবরাহ করেছে। একইসঙ্গে জানান, জুন মাসে কোন ধরনের ডাল রাজ্যের চাই তা নাফেডকে জানাতে হবে। রেশন দুর্নীতি থেকে দূরে থাকার কথাও এ প্রসঙ্গে কৌশলে স্মরণে করিয়ে দেন। তারই পাল্টা টুইট একদিন পরে করেন খাদ্যমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন :আচমকা বিনা মেঘে বজ্রপাতে মৃত্যু ৪ জনের, আশঙ্কাজনক আরও এক]

জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক লেখেন, “রাজ্যপাল আবার খাদ্য দপ্তর নিয়ে আজগুবি ও ভুল তথ্য পরিবেশন করছেন। মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন। এই মানুষটি এত বড় মিথ্যাবাদী, সত্যি কথা বলতে জানেন না।” এরপরই পাল্টা তথ্য দেন মন্ত্রী। লেখেন, “মুসুর ডাল মোট প্রয়োজন ৪৩ হাজার ২৯০ মেট্রিক টন। নাফেড নামে একটি কেন্দ্রীয় কো-অপারেটিভ ১৩ হাজার ৩৭০
মেট্রিক টন ডাল এনে রেখে দিয়েছে। রাজ্যপাল খাদ্য দপ্তরের অ, আ, ক, খ জানেন না।” তবে রাজ্যপাল যে বলছেন জুন মাসের ডালের কথা? নাফেড কি মে মাসের বরাদ্দ ডাল জুন মাসে হলেও পাঠানোর কোনও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন? পাঠালেও তা কোন ডাল? খাদ্যমন্ত্রীর দাবি, “নাফেডও কিছুই বলেনি। ওরা ওদের অবস্থানেই রয়েছে। আমরা যা চাই তা জানিয়েছি। কিন্তু তার পর নতুন করে ওরা কী করবে তা নিয়ে এখনও মুখ খোলেনি।” তবে রাজ্যপালের টুইট? “পুরোপুরি বাজে কথা। উনি কিছুই জানেন না। যা পারছেন বলে যাচ্ছেন। মানুষ বিভ্রান্ত হচ্ছে।” শেষে ১৩ মে পর্যন্ত রাজ্যের পৌনে ন’কোটি মানুষ যে চাল, আটা তুলেছেন তার হিসাবও দিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে দাবি করেছেন, জুন মাসের রেশনের জন্যও দপ্তর প্রস্তুত। অতিরিক্ত ২ লক্ষ ৬১ হাজার ৮৮৭ মেট্রিক টন চাল তোলা হয়েছে। বাকি রয়েছে ৩৯ হাজার মেট্রিক টন। যা ১৭ মে তোলা হবে। মন্ত্রীর প্রশ্ন, “রাজ্যপাল মানুষকে ভুল তথ্য দেবেন কেন? আপনাকে অনুরোধ খাদ্য নিয়ে জঘন্য রাজনীতি করবেন না।”

[আরও পড়ুন : কষ্ট করে ফেরাই সার, সংক্রমণের আশঙ্কায় পরিযায়ী শ্রমিককে বাড়ি ঢুকতে বাধা স্ত্রী-সন্তানের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement