৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিক্রম রায়, কোচবিহার: গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে পর্যালোচনা বৈঠক করার সময় বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মনের উপর হামলা চালানোর অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। শনিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে মাথাভাঙা ২ নম্বর ব্লকের বড় শোলমারি এলাকায়। পার্টি অফিসে ভাঙচুর করার পাশাপাশি মন্ত্রীর গাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। পরে ঘোকসাডাঙা থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে মন্ত্রীকে উদ্ধার করে। অপরদিকে দিনহাটায় বিজেপির হাতে আক্রান্ত কর্মীদের খোঁজ খবর নিয়ে ফেরার পথে শালমারা এলাকায় বিক্ষোভের মুখে পড়লেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। তঁাকে ঘিরে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

[ আরও পড়ুন: কোচবিহারে ‘গদ্দার’ কে? প্রশ্ন উঠেছে তৃণমূলের অন্দরে]

বনমন্ত্রী বিনয় কৃষ্ণ বর্মন বলেন, বড় শোলমারি পার্টি অফিসে পর্যালোচনা বৈঠকে বসা মাত্রই প্রায় পাঁচশোরও বেশি বিজেপি কর্মী সমর্থক পার্টি অফিস ঘিরে ধরে ইট পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। ঘণ্টা দুয়েক পর যখন পুলিশের সাহায্যে এলাকা থেকে বেরোচ্ছিলেন, তখন তাঁকে হেনস্তা করেন বিজেপি কর্মীরা। মন্ত্রীর বক্তব্য, পুলিশ না থাকলে হয়তো জীবিত ফিরতে পারতেন না। নরেন্দ্র মোদির মুখে গণতন্ত্রের বার্তা যে মানায় না তা এই দিনের ঘটনা প্রমাণ করেছে। যদিও দু’টি অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি জেলা নেতৃত্ব। বিজেপির সভাপতি মালতি রাভা জানান, এই ঘটনার সঙ্গে বিজেপির কোনও যোগ নেই। বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীরা হয়তো গেরুয়া আবির মেখে এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। প্রশাসনের উচিত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

[আরও পড়ুন: ভোটে জিতে এলাকায় ‘দাদাগিরি’! বিজেপি নেতাকে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মার]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং