BREAKING NEWS

০২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বাড়ির পাশের পুকুরে তলিয়ে গেল বছর চারেকের খুদে

Published by: Avirup Das |    Posted: February 15, 2020 9:51 pm|    Updated: February 15, 2020 9:52 pm

four year old fakir sarder drowns in pond in baruipur

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: খেলতে খেলতে বল পড়ে গিয়েছিল জলে। উৎসাহে সেই বল তুলতে পুকুরে নেমেছিল চার বছরের খুদে। কে জানত তার আর উঠে আসা হবে না। বাড়ি থেকে ঢিল ছোঁড়া দুরত্বে পুকুরেই তলিয়ে গেল চার বছরের একরত্তি। মর্মান্তিক এই ঘটনা দক্ষিণ ২৪ পরগনা জীবনতলা থানার পাতিখালী এলাকার।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শনিবার দুপুরে বাড়ির পাশে খেলছিল ফকির সর্দার নামে বছর চারেকের ওই শিশু। তার সঙ্গে বন্ধুরাও ছিল। আচমকাই খেলতে খেলতে বল পড়ে যায় পুকুরে। সেই বল তুলতে নামে ফকির। আচমকাই যে গভীরে তলিয়ে যাবে তা আন্দাজ করতে পারেনি শিশুটি। অন্যান্য খুদে সঙ্গীরাও বুঝতে পারেনি। এদিকে বল তুলতে নেমে ক্রমশ পুকুরের গভীরে চলে যায় শিশুটি। আচমকাই সে খাবি খেতে শুরু করে। বন্ধুকে জলে তলিয়ে যেতে দেখে ভয়ে পালিয়ে যায় খেলার সঙ্গীরা। পাছে জানাজানি হলে মা-বাবা বকাবকি করে ভয়ে তারা বাড়িতে ফিরও অনেকক্ষণ কাউকে কিছু জানায়নি। এদিকে ফকির বাড়িতে না ফেরায় তার খোঁজ শুরু করে বাড়ির লোকেরা। সারা পাড়া ঘুরেও ফকিরকে কোথাও পাওয়া যাচ্ছিল না।

তাহলে কি বন্ধুরাই জানে ফকির কোথায়? বাড়ির লোকেরা চেপে ধরে ফকিরের বন্ধুদের। অবশেষে বন্ধুরা স্বীকার করে বল তুলতে গিয়ে পুকুরে নেমেছিল ফকির। সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় ফকিরের বাবা কুদ্দুসকে। কুদ্দুস ও স্থানীয় মানুষজন পুকুরে নেমে খোঁজাখুজি শুরু করেন। কোনও ভাবেই পাওয়া যাচ্ছিল না ফকিরকে। বাধ্য হয়েই জাল ফেলা হয় পুকুরে। ঘটনাস্থলে আসে স্থানীয় থানার পুলিশও। অনেক চেষ্টার পর জল থেকে উদ্ধার করা হয় ওই শিশুকে। জল থেকে তুলে দেখা যায় পেট ফুলে রয়েছে শিশুটির। স্থানীয় বাসিন্দারা পেটে চাপ দিয়ে জল বের করেন। তড়িঘড়ি নিয়ে যাওয়া হয় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে। চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে শিশুটিকে মৃত বলে ঘোষণা করে। ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে এলাকায়। ছেলের মৃত্যুতে বারেবারে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলছেন ফকিরের মা।

[আরও পড়ুন: তৃণমূলের পথে হেঁটে এবার ‘বিজেপিকে বলো’ কর্মসূচি আনছে গেরুয়া শিবির]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে