BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

এখানে মধ্যরাতে দেখা মেলে সাহেব ভূতের!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 21, 2016 11:15 am|    Updated: October 27, 2018 5:17 pm

Ghost enters in houses at night in Shamuktala

শান্তনু কর: কথায় আছে, ঠিক দুপুরবেলা ভূতে মারে ঢ্যালা৷ তবে বাড়িতে ঢিল পড়ছে না ঠিকই, কিন্তু ঠিক মধ্যরাতে দরজা ঠেলে তিনি সটান ঘরে ঢুকে পড়ছেন৷ কালো আলখাল্লা, মাথায় টুপি, কিন্তু মুখটা স্পষ্ট নয়৷ স্রেফ ঘরে ঢুকে পড়া নয়, একেবারে নিজের বেডরুম ভেবে গটগট করে পায়চারি করছেন৷ কাউকে ভয় দেখাচ্ছেন না, মারতেও আসছেন না, শুধু আপন খেয়ালে পায়চারি করেন৷ অনেকটা সাহেবি কায়দায়৷ তবে শব্দ করলেই হুস, হাওয়া৷
পুলিশে খবর গিয়েছে৷ রাতপাহারা জোরদার হয়েছে৷ কিন্তু তেনার কোনও হেলদোল নেই৷ মধ্যরাতে হাজির৷ কোথা থেকে আসছেন তিনি? কী তাঁর মতলব? এ কী সত্যিই সাহেব ভূত? হাজার চিন্তায় আলিপুরদুয়ারের শামুকতলা থানা এলাকার ধওলাতলা ও কোহিনুর চা বাগান ও ডাঙ্গি শরণার্থী শিবির এলাকার মানুষের একেবারে থরহরি কম্পমান অবস্থা৷ অনেকে বাড়ি ছেড়ে আত্মীয়বাড়িতে, অনেকে আবার মাথার পাশে ধারালো অস্ত্র নিয়ে ঘুমোতে যাচ্ছেন, কাছে এলেই এক কোপে সাবাড়৷ কিন্তু কাকে কোপ মারবে? সাহেব ভূতের ভয়ে জড়োসড়ো অনুভবা সেন জানান, “মাঝরাতে যে আসছে, সে তো ভূত৷ নিরাকার, বায়বীয়৷ তাকে মারধর করব কী করে?” কহিনুর চা বাগান বস্তির উত্তম দে আবার বলেন, “তবে একথা ঠিক, দেখলে ভয় লাগছে, কিন্তু কারও ক্ষতি তো করছে না৷ চিত্কার করলেই হাওয়া হয়ে যাচ্ছে৷”
এরকমই নানা অদ্ভুত অভিজ্ঞতার কথা শোনাচ্ছেন শামুকতলার মানুষ৷ তবে আরও মজার ব্যাপার, ওই সাহেব ভূত নাকি একই বাড়িতে দু’বার যাচ্ছেন না৷ তাই যাঁদের সঙ্গে একবার সাক্ষাত্‍ হয়েছে, তাঁরা অকুতোভয়৷ পড়শিকে সাহস জোগাচ্ছেন৷ কিন্তু কালো আলখাল্লা ঢাকা সাহেব ভূতের গল্পে এখন সন্ধ্যা নামলেই শামুকতলার বিভিন্ন এলাকা শুনসান হয়ে পড়ছে৷ ঘরে খিল, মুখে রাম নাম৷ তবে, ভিন্নমতও রয়েছে৷ অনেকেই বলছেন, ‘‘ওসব কিছু নয়, মনে ভয় জন্মেছে বলে অন্ধকারের মধ্যেই কালো আলখাল্লা দেখতে পাচ্ছেন অনেকে৷ ঘরে আলো জ্বেলে রাখলেই মিটে যায়৷” আলিপুরদুয়ারের মহকুমা শাসক সমীরণ মণ্ডল অবশ্য বলেন, “এই ধরণের একটা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে শুনেছি৷ ব্যক্তিগতভাবে আমার গুজব মনে হলেও, গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছি পুলিশকে৷” আলিপুরদুয়ারের পুলিশ সুপার আভারু রবীন্দ্রনাথন জানিয়েছেন, “এরকম ঘটনার কথা শুনেছি৷ ভূত বলে কিছু হয় না৷ হতে পারে কোনও দুষ্কৃতী এলাকায় ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করার চেষ্টা করতে পারে৷
মানুষ ভয় পাচ্ছেন, তাই ওই সব এলাকায় আমরা প্রায় সারারাতই টহল দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি৷
পাশাপাশি কুসংস্কার দুর করতে জোর সচেতনতা প্রচারও চালানো হচ্ছে৷” তিনি আশাবাদী কিছুদিনের মধ্যেই আসল সত্য সামনে আসবে৷ জেলা পুলিশ সুপারের এই বক্তব্যে যুক্তিবাদীরা জোর পেয়েছেন৷ তাঁরাও বাড়ি বাড়ি গিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছেন, ভুত বলে কিছু নেই৷ কালো আলখাল্লার আড়ালের চেহারাটা শীঘ্রই সামনে আসবে৷ ধওলাতলা ও কোহিনুর চা বাগানবস্তির মানুষ যুক্তিকে ভরসা করতে চাইছেন, কিন্তু মনে একটা ভয় রয়েই যাচ্ছে৷ আজ রাতে কার বাড়িতে?

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে