১৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘ভুতুড়ে ট্রলার’ থেকে উদ্ধার ৪ হাজার লিটার চোরাই কেরোসিন, জুনপুটে চাঞ্চল্য

Published by: Shammi Ara Huda |    Posted: September 4, 2018 1:15 pm|    Updated: September 4, 2018 1:15 pm

'Ghost trawler' mystery busted, 2 smugglers held

ছবিতে 'ভুতুড়ে ট্রলার' ও উদ্ধার হওয়া কেরোসিনের ড্রাম।

রঞ্জন মহাপাত্র, কাঁথি: জুনপুটে ভুতুড়ে ট্রলার থেকে উদ্ধার চার হাজার লিটার চোরাই কেরোসিন। এই ঘটনায় দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতদের নাম সত্যনারায়ণ গিরি ও কানাই মণ্ডল। বাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগনার সাগর এলাকায়। উদ্ধার হওয়া কেরোসিনের বাজার মূল্য দুলক্ষ টাকা। সোমবার গভীর রাতে ভুতুড়ে ট্রলারের অনুসন্ধানে নেমে কেরোসিন-সহ দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে জুনপুট কোস্টাল থানার পুলিশ। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের জুনপুটে।

পুলিশ জানিয়েছে, বেশকিছু দিন ধরে জুনপুট উপকূলবর্তী এলাকায় ‘ভুতুড়ে ট্রলারে’র গুজব ছড়িয়েছিল। এনিয়ে স্থানীয় মৎস্যজীবী ও বাসিন্দাদের মধ্যে একটা আতঙ্ক ছড়ায়। বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হলেও ‘ভুতুড়ে ট্রলারে’র খোঁজে তক্কেতক্কে ছিল পুলিশ। গোপন সূত্রে উপকূল এলাকায় অপরিচিত ট্রলারের উপস্থিতির খবর পেয়েই অভিযানে নামে জুনপুট কোস্টাল থানার পুলিশ। অভিযানে নামতেই চার হাজার লিটার কেরোসিন-সহ হাতনাতে ধরা পড়ে দুই দুষ্কৃতী। জেরায় ধৃতরা স্বীকার করেছে, সাগর থেকে চোরাই কেরোসিন নিয়ে চড়াদামে বেচতে চেয়েছিল তারা। দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাছাকাছি অঞ্চলে বিক্রির ব্যবস্থা করলে ধরা পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকায় ট্রলারে চেপে কেরোসিনের ২০টি ড্রাম নিয়ে জুনপুটে চলে আসে। চুরির কেরোসিন কাঁথির পেটুয়া মৎস্য বন্দরে বিক্রির পরিকল্পনা ছিল দুষ্কৃতীদের। তবে তার আগেই বমাল গ্রেপ্তার দুই অভিযুক্ত।  

[মাথাভাঙায় ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ২ শিশু-সহ মৃত ৬]

জুনপুট কোস্টাল থানার ওসি রবি গ্রহিকা বলেন,  ধৃতদের কাছে কীভাবে এই বিপুল পরিমাণ কেরোসিন এল তা নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। গ্রামে গ্রামে ঘুরে নাকি কোনও রেশন ডিলারদের থেকে চোরাই পথে এই কেরোসিন সংগ্রহ করেছিল, বিষয়টি নিয়ে পুলিশ খোঁজ খবর শুরু করেছে। এদিকে এই ঘটনার সঙ্গে কালো ট্রলারে কোনও যোগ আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ্য, বেশ কয়েকদিন সমুদ্রে চালকহীন একটি কালো ট্রলারকে ভাসতে দেখেন মৎস্যজীবীরা। পুলিশ তদন্ত করেও তার কোন হদিশ পায়নি। সেই ‘ভুতুড়ে ট্রলারে’ই কেরোসিন ধরা পড়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জুনপুটে। প্রশাসন সূত্রের খবর, দিঘার উপকূল এলাকায় চলা ট্রলারের রং কমলা। এমনকী, কাকদ্বীপেও কালো রঙের ট্রলারের উপস্থিতি নেই। তবে দুষ্কৃতীদের কাছে কোথা থেকে এই কালো রঙের ট্রলার এল একযোগে খতিয়ে দেখছে পুলিশ ও মৎস্য দপ্তর।

[খাবারের লোভ দেখিয়ে প্রতিবেশী ২ শিশুকন্যাকে যৌন নিগ্রহ, গ্রেপ্তার প্রৌঢ়]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে