৮ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ২৬ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

নিজস্ব সংবাদদাতা, বনগাঁ: কিশোরীর আত্মহত্যার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল বনগাঁর গাইঘাটার বকচরা এলাকায়। আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে বুধবার রাতে কিশোরীর প্রেমিকের বাড়িতে তাণ্ডব চালায় মৃতার পরিবারের সদস্যরা। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় ওই যুবকের বাড়িতেও। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যেই ১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে গাইঘাটা থানার পুলিশ।   

[আরও পড়ুন: ডাক্তারদের কর্মবিরতিতে মৃত্যুমিছিল রোগীদের, চাঞ্চল্য উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে]

গাইঘাটার বকচরা পাইকপাড়ার বাসিন্দা দশম শ্রেণির পড়ুয়া তুহিনা বল্লভ। জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরে এলাকার বাসিন্দা সুদীপ হালদারের সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্ক তৈরি হয় ওই কিশোরীর। বাড়িতেও জানত তাঁদের সম্পর্কের কথা। পরিবার সূত্রে খবর, ইদানীং সুদীপের সঙ্গে অশান্তি শুরু হয় তুহিনার। এরপর থেকেই বাড়িতে মনমরা হয়ে থাকত ওই কিশোরী। পরিবারের দাবি, সম্পর্কের টানাপোড়েনের জেরে অবসাদে ভুগছিল সে। একাধিকবার অশান্তি মেটানোর জন্য প্রেমিকের সঙ্গে কথাও বলে তুহিনা। কিন্তু, তাতে কার্যত কোনও সুরাহা মেলেনি। জানা গিয়েছে, এরপর শনিবার রাতে প্রেমিকার বাড়িতে যান সুদীপ। অভিযোগ, সেখানে তুহিনার সঙ্গে অভব্য আচরণ করে সে। রবিবার বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে তুহিনা। পরিবারের সদস্যদের নজরে পরতেই তাঁকে উদ্ধার করে বনগাঁ হাসপাতালে ভরতি করা হয়। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় পরে তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। বুধবার সেখানেই মৃত্যু হয় তার। 

[আরও পড়ুন: কোচবিহারে বিজেপি কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়]

কিশোরীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হয়। কিশোরীর দেহ বাড়িতে পৌঁছাতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয়রা। এদিন রাতেই অভিযুক্ত সুদীপের বাড়ি এবং তার জেঠুর বাড়িতে ভাঙচুর চালায় স্থানীয়রা। আগুনও ধরিয়ে দেওয়া বাড়িতে। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে ঘটনাস্থলে যায় গাইঘাটা থানার পুলিশ ও দমকল। বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন। ইতিমধ্যেই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অন্যান্যদের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লাশি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং