১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

আজ প্রাথমিক টেট মামলার রায় দেবে হাই কোর্ট

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: September 14, 2016 9:24 am|    Updated: September 14, 2016 9:24 am

HC verdict for TET will decide the luck of 22 lacks examinee

স্টাফ রিপোর্টার: আজ, বুধবার প্রাথমিক টেট মামলার রায় কলকাতা হাই কোর্টে৷ এই মামলার রায়ের উপর নির্ভর করছে ২২ লক্ষ পরীক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ৷ ২০১৫-র ১১ অক্টোবর হওয়া টেটে অপ্রশিক্ষিতদের নিয়োগকে কেন্দ্র করে মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাই কোর্টে৷ এর আগে একবার এই মামলায় রায়দানের কথা থাকলেও তা স্থগিত রাখেন বিচারপতি সি এস কারনান৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছেন, মামলা মিটে গেলেই অন্তত ৬৫ হাজার শিক্ষককে নিয়োগপত্র দেবে রাজ্য সরকার৷

এই মামলায় আগেই শিক্ষক নিয়োগে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দেন বিচারপতি কারনান৷ প্রাথমিক টেটে অপ্রশিক্ষিতদের নিয়োগের সময়সীমা পার হয়ে গিয়েছে ২০১৬-র ৩১ মার্চ৷ এরপর অপ্রশিক্ষিতদের নিয়োগ দেওয়া যাবে না৷ এই দাবিতে হাই কোর্টে মামলা করেন চিন্ময় দলুই-সহ বেশ কয়েকজন প্রশিক্ষিত প্রার্থী৷ মামলাকারীদের দাবি, এনসিটিই-র গাইডলাইন অনুযায়ী প্রাথমিক ক্ষেত্রে প্রশিক্ষিত প্রার্থীদের নিয়োগ বাধ্যতামূলক৷ অপ্রশিক্ষিতদের প্রশিক্ষিত করতে এর আগে কেন্দ্রের কাছে সময়সীমা বৃদ্ধি করার জন্য একাধিকবার আবেদন জানায় রাজ্য সরকার৷ রাজ্যের আবেদনমতো শেষবার সেই সময়সীমা বৃদ্ধি করে ২০১৫-র এপ্রিল থেকে ২০১৬-র মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়৷ সেই মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গিয়েছে৷ তাই এক্ষেত্রে অপ্রশিক্ষিতদের নিয়োগ অবৈধ৷ কারণ নিয়মমতো একাধিকবার সময়সীমা বৃদ্ধির আবেদন জানানো যায় না৷ রাজ্যের তরফে হাই কোর্টে পাল্টা যুক্তি দেওয়া হয়, ২০০৯ সাল পর্যন্ত অপ্রশিক্ষিতদের প্রশিক্ষিত করার যে প্রতিষ্ঠানগুলি ছিল সেগুলি বৈধ ছিল না৷ বর্তমানে রাজ্যে ৪৩৭টি প্রতিষ্ঠান রয়েছে৷ প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে ৫০ জন প্রার্থীকে প্রশিক্ষিত করা যায়৷ ২০১৫-র টেটের বিজ্ঞপ্তি হওয়ার সময় পর্যাপ্ত প্রশিক্ষিত প্রার্থী ছিল না৷ এই যুক্তি ও পাল্টা যুক্তির প্রেক্ষিতে মামলায় রায় দান হতে চলেছে আজ, বুধবার৷

২০১৫ সালের এই প্রাথমিক টেটে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল প্রায় ২২ লক্ষ৷ ২০১৫ সালে টেট হওয়ার কথা ছিল ৩০ আগস্ট৷ কিন্তু মধ্যশিক্ষা পর্ষদের বাস থেকে প্রশ্নপত্রের একটি বান্ডিল খোয়া যাওয়ায় পরীক্ষা পিছিয়ে ১১ অক্টোবর করা হয়৷ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেও মামলা দায়ের হয় হাই কোর্টে৷ অবশেষে হাই কোর্টের নির্দেশমতো বাতিল হওয়া টেটের প্রশ্নপত্র ওয়েবসাইটে আপলোড করে শিক্ষা সংসদ৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে