BREAKING NEWS

৮ মাঘ  ১৪২৮  শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

রাত বাড়তেই ধুপধাপ শব্দ-মহিলার কান্না, ভূতুড়ে হস্টেল ঘিরে চাঞ্চল্য ডুয়ার্সে

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: August 19, 2018 7:15 pm|    Updated: August 19, 2018 7:15 pm

Horror growing in the hostel at Malabazar

অরূপ বসাক, মালবাজার: ভূতুরে হোস্টেল৷ রাত বাড়তেই শুরু তাণ্ডব৷ হঠাৎ হরেক রকমের শব্দ৷ দূরে কোনও এক মহিলার কান্না৷ কখনও আবার তীক্ষ্ণ চিৎকার৷ ঘরের বাইরে নাম ধরে ডাক৷ কখনও আবার ঘরের মধ্যেই দৌড়ানোর শব্দ৷ রাতদুপুরে এহেন তাণ্ডবের সাক্ষী থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন হস্টেল নির্মাণকারী সংস্থার ম্যানেজারের স্ত্রী৷ ভূতের ভয় এমন পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে যে, গ্রামবাসীরাও ভয়ে সন্ধ্যার পর থেকে হস্টেল চত্বরেও পা বাড়াচ্ছেন না৷ ভূতের আতঙ্ক এতোটাই গ্রাস করেছে যে, সদ্য বিবাহিত ওই দম্পতিকে হস্টেল লাগোয়া বাড়ি ভাড়া করে রাত কাটাতে হচ্ছে৷ যদিও, বিজ্ঞানমঞ্চ এই ঘটনা মানতে নারাজ৷ দ্রুত বিষয়টি খতিয়ে দেখতে মাল ব্লকের চেংমারি গ্রামপঞ্চায়েতের মডেল হাইস্কুলের হোস্টেলে রাত কাটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিজ্ঞানমঞ্চের সদস্যরা৷ 

[কাঁচা মাংসে কীটনাশক স্প্রে! বহরমপুরে গ্রেপ্তার ব্যবসায়ী]

হোস্টেল কন্সট্রাকশন ম্যানেজার টোটন রায় বলেন, ‘‘আমি প্রায় দু’বছর ধরে এখানে আছি৷ মাঝে মধ্যেই বিভিন্ন রকমের শব্দ শুনতে পেতাম৷ কিন্তু ঘর থেকে বেরতাম না৷ গত তিনমাস ভূতের তাণ্ডব বর্তমানে এতটাই বেড়ে গিয়েছে৷ সেখানে রাতে থাকাই সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।’’ এলাকারই এক বাসিন্দা গোলাম নবি আজাদ জানান, আগে এই এলাকাটিতে জঙ্গল ছিল৷ শ্মশানঘাট হিসাবেও ব্যবহার করা হত৷ আগেও এখানে তাঁরা ভূত দেখেছিলেন বলে দাবি স্থানীয়দের৷ গাছের মধ্য থেকে একটি মেয়ে সন্ধ্যা হলেও অনেকের নাম ধরে ডাকত৷ ভয়ে কেউ সন্ধ্যার পর থেকে এই পথ এড়িয়ে যেতেন স্থানীয়রা৷ এলাকার এক বাসিন্দা সামসুদ্দিন আহমেদ জানান, ৪৫ বছর আগে বুড়ি রায় নামের একটি মহিলা নিখোঁজ হয়ে যান৷ নিখোঁজ থাকার বেশ কয়েকদিন পর পাশেই খুলনাই নদীর থেকে রক্তাক্ত মৃতদেহ দেহ উদ্ধার হয়৷ এর পর থেকেই ওই এলাকায় নানারকম ভৌতিক কাণ্ড ঘটে চলেছে বলে দাবি স্থানীয়দের৷

[ভাগীরথীর তীরে পর্যটনের নয়া ঠিকানা নেতাজি সুভাষ দ্বীপ]

বছর দুই আগে গড়ে ওঠা মডেল স্কুলটি খুলনাই নদীর ধারে গড়ে উঠেছে। দ্বাদশ শ্রেণির হলেও এখন শুধু পঞ্চম ও ষষ্ট শ্রেণি পর্যন্ত চালু হয়েছে৷ মোট ৮০ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছে এই স্কুলে৷ হোস্টেলেই বিল্ডিং কনস্ট্রাকশনের কাজ এখনও চলছে৷ ফলে, সেখানে ছাত্র-ছাত্রীদের রাখা হয়নি৷ জানা গিয়েছে, ২০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে কাজ শেষ হয়ে যাবে৷ এরপর থেকেই হস্টেলেও ছাত্র-ছাত্রীদের থাকার ব্যবস্থা করা হবে৷ এর মধ্যেই যে, ভূতের তাণ্ডব শুরু হয়েছে৷ এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্কের পরিস্থিতি তৈরি করেছে৷ স্কুল হস্টেলে ভূতের তাণ্ডব প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞানমঞ্চের রাজ্য সহ-সভাপতি শঙ্কর কর বলেন, ‘‘ভূত বলে কছু হয় না৷ ওটা মানুষের মনের ভয়৷ আমরা ওখানে যাব৷ দেখব কি ঘটনা রয়েছে?’’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে