BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

খবরের জের, হাওড়ার ভিড়ে ঠাসা বাজার সরিয়ে দিল প্রশাসন

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 16, 2020 3:27 pm|    Updated: April 16, 2020 3:27 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালের খবরের জের। হাওড়া জেলার বেলুড়, বালি, লিলুয়ায় করোনা সংক্রমণের খবর প্রকাশ্যে আসায় বাজার সরিয়ে ফাঁকা জায়গায় আনার কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। এর আগে, লকডাউন চলা সত্ত্বেও সমস্ত বিধিনিষেধ শিকেয় তুলে বাজারে দেখা গিয়েছিল বিপুল জমায়েত। খবরটি প্রকাশিত হওয়ার পরই নড়েচড়ে বসে এই উদ্যোগ নেয় প্রশাসন।

[আরও পড়ুন: ‘পরে কিনব ক্রিকেট কিট’, স্বপ্ন বিসর্জন দিয়ে ত্রাণের জন্য সঞ্চিত অর্থ দান ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রের]

বৃহস্পতিবার, নিশ্চিন্দা থানার চাঁদমারী বাজারটি ফুটবল মাঠে স্থানান্তর করে পুলিশ। তবে প্রশাসন উদ্যোগ নিলেও, উদ্বেগজনকভাবে মানুষের মধ্যে সচেতনতার অভাব দেখা গিয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে বারবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক ব্যবহার করার আবেদন জানানো হলেও, অনেকেই তাতে কর্ণপাত করছেন না। মাস্ক পরাটা রাজ্যের তরফে আইনগতভাবে বাধ্যতামূলক করা হলেও তেমন সাড়া মিলছে না। ফলে ক্ষোভ বাড়ছে সচেতন মানুষজনের মধ্যে। তাঁদের কথায়, মাস্ক যাঁরা পরছেন না, তাদের বিরুদ্ধেই কড়া ব্যবস্থা নিক পুলিশ-প্রশাসন। পুলিশ অবশ্য মাইকে সতর্কতার বিষয়টি প্রচার করছে।           

উল্লেখ্য, বেলুড় থেকে লিলুয়া দুই কিলোমিটার দূরত্বে দিন কয়েকের মধ্যে তিন করোনা আক্রান্ত ও বেশ কয়েকজন মানুষকে কোয়ারন্টাইনে পাঠানোর পরও বিভিন্ন এলাকায় সচেতনতা বাড়েনি বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রথমে বেলুড় ষষ্ঠীতলায় এক পরিচারক, পরে প্রায় একই সময়ে বেলুড় পাঠকপাড়া এলাকায় এক নার্স ও লিলুয়া চকপাড়ায় এক হোসিয়ারি কর্মীর শরীরে নোভেল করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। কারুরই বিদেশ যোগের সূত্র পাওয়া যায়নি। ফলে এনিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রশাসন।  

এদিকে, সরকারিভাবে সতর্কতা জারি হলেও বহু মানুষ অসতর্ক বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন। নিশ্চিন্দা, বালি, বেলুড় থানা এলাকার বেশ কিছু অঞ্চলে এখনও মানুষ অকারণে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বিধিনিষেধ সত্বেও চা থেকে মনিহারি দ্রব্যের দোকান খোলা হচ্ছে। জমিয়ে আড্ডামারা চলছে। আইন জারি সত্বেও মাস্ক পরছেন না বহু মানুষ। পুলিশ জানিয়েছে, মাইকে সতর্কবার্তা প্রচারের পাশাপাশি এলাকায় গিয়ে পুলিশ সতর্ক করছে। এর পরেও মানুষ অবুঝ হলে দায় সামলাতে হবে তাদেরই। এদিকে হাওড়া সিটি পুলিশ জানিয়েছে, বাজারের ভিড় এড়াতে সবজি নিয়ে বাড়ির সামনে যাবে ফেরিওয়ালা। এদিকে বহু বাজার রয়েছে ঘিঞ্জি এলাকায়। সেগুলিকে রাস্তা বা মাঠে সরিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন স্থানীয়রা।

[আরও পড়ুন: লকডাউনের জেরে নষ্ট হচ্ছে পান, সর্বস্ব খুইয়ে মাথায় হাত চাষিদের]   

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement