২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আবাসন নির্মাণের জন্য প্রোমোটারকে হুমকি, ১০ লক্ষ টাকা তোলা চেয়ে গ্রেপ্তার ‘তৃণমূল নেতা’

Published by: Sulaya Singha |    Posted: August 31, 2020 4:07 pm|    Updated: August 31, 2020 4:07 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

অরিজিৎ গুপ্ত, হাওড়া: প্রোমোটারকে হুমকি ও তাঁর কাছ থেকে দশ লক্ষ টাকা তোলা চাওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হলেন বালির স্থানীয় তৃণমূল নেতা। শনিবার রাতে বিশ্বজয় বদ্যোপাধ্যায় নামে ওই নেতাকে গ্রেপ্তার করে বালি থানার পুলিশ। বালির পাঠকপাড়ার বাড়ি থেকেই তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। রবিবার তাঁকে হাওড়া আদালতে তোলা হলে তিনদিনের পুলিশ হেফাজত হয়েছে।

স্থানীয় প্রোমোটার মহেশকুমার সুরেখার অভিযোগ, গত ২৭ আগস্ট লকডাউনের দিন ওই তৃণমূল নেতা তাঁকে ফোন করে হুমকি দেন। প্রোমোটারকে ফোন করে জানতে চান তাঁর অনুমতি ছাড়া বালির নিমতলায় কেন আবাসন নির্মাণ করা হচ্ছে। অনুমতি না নিয়ে আবাসন তৈরির কাজ করার জন্য টাকাও চান তিনি। কিছু বুঝে উঠতে না পেরে ওই প্রোমোটার ফোনের ওপারের ব্যক্তির পরিচয় জানতে চান। তখনই নিজেকে কিছু শীর্ষস্থানীয় তৃণমূল নেতার ঘনিষ্ঠ বলে দাবি করেন বিশ্বজয়। এমনকী, যেখানে নির্মাণকাজ হচ্ছে সেখানে গিয়ে ছবি তোলেন। প্রোমোটারের ঘনিষ্ঠ লোকজনকে মারধর করার অভিযোগও ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে অমিল গাড়ি, মাত্র ৩০ সেকেন্ড দেরিতে পৌঁছনোয় পরীক্ষা দিতে পারলেন না পড়ুয়ারা]

প্রোমোটারের ঘনিষ্ঠদের কাছ থেকে কিছু পরিমাণ টাকাও নেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এরপরই শনিবার সকালে বালি থানায় বিশ্বজয়ের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ দায়ের করেন প্রোমোটার। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছেন বিশ্বজয়। তিনি বলেন, “দীর্ঘদিন ধরেই এলাকায় তৃণমূল করি। বেআইনিভাবে প্রোমোটিং করার প্রতিবাদ করেছিলাম। তাই আমাকে ফাঁসানো হল।”

হাওড়া জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান অরূপ রায় বলেন, “ওই নামে বালিতে কোনও নেতা নেই। কেউ তৃণমূলের নেতাদের কাছে যেতেই পারে। তার মানেই সে নেতা নয়। দল এই ধরনের অন্যায়কে বরদাস্ত করে না। পুলিশ ব্যবস্থা নিক।”

[আরও পড়ুন: দ্বিতীয়বার করোনার থাবা! কলকাতার একই ওয়ার্ডের ৬ জনের ফের সংক্রমণ বাড়াল উদ্বেগ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement