BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বুধবার ২৫ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রাজ্যে আরএসএসকে নিষিদ্ধ করার ডাক দিলেন শাহি ইমাম বরকতি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 6, 2017 4:36 am|    Updated: December 17, 2019 2:58 pm

Imam of Tipu Sultan Mosque asks Mamata to ban RSS in Bengal

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রামনবমীর মিছিল নিয়ে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘকে একহাত নিলেন টিপু সুলতান মসজিদের শাহি ইমাম সৈয়দ মহম্মদ নুরুর রহমান বরকতি। বুধবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে সংঘকে ভারতের জন্য বিপজ্জনক বলে কটাক্ষ করলেন বরকতি। একইসঙ্গে তালিবানদের সঙ্গে তুলনা করে অবিলম্বে আরএসএসকে এ রাজ্যে নিষিদ্ধ করার ডাক দিলেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, ‘রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আরএসএসকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার জন্য আবেদন জানাব।’

[সম্প্রীতির নজির গড়ে মুসলিমদের টাঙ্গাই এ বঙ্গে হচ্ছে শ্রীরামের রথ]

প্রসঙ্গত, বুধবার রামনবমী উপলক্ষ্যে শ্রীরামচন্দ্রকে নিয়ে এ রাজ্যে এমন মাতামাতি কস্মিনকালেও দেখা যায়নি। পশ্চিমবঙ্গে শাসকদলের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে করে আসছে বিজেপি তথা সংঘ পরিবার। তাই রাজনৈতিক মহলের ধারণা, গতকালের এই মাতামাতি রাজ্যকে নিজেদের শক্তি প্রদর্শনের জন্যই করেছে সংঘ পরিবার। মুখে যতই হিন্দু জাগরণের কথা বলা হোক না কেন, শাসকদলকে চোখ রাঙাতে রামনবমীর চেয়ে ভাল উপলক্ষ্য হতে পারে বলে মনে করছে না ওয়াকিবহাল মহল। গতকাল শহর কলকাতা জুড়ে প্রায় ৫০টিরও বেশি রামনবমীর শোভাযাত্রা তারই উদাহরণ। এমনকী খিদিরপুরের মতো মুসলিম অধ্যুষিত এলাকাতেও রামনবমীর মিছিল চোখে পড়ে। গেরুয়া মিছিল থেকে স্লোগান ওঠে ‘হিন্দু রাজ বনায়েঙ্গে’। এই পরিস্থিতিতে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা সৃষ্টির গন্ধ পাচ্ছেন শাহি ইমাম। তিনি মনে করেন, আমেরিকা যেমন তালিবানকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে তেমনই আরএসএসকেও নিষিদ্ধ ঘোষণা করা উচিত। শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয়, গোটা দেশে সংঘকে নিষিদ্ধ করা উচিত বলে মত তাঁর। তাঁর দাবি, সংঘ পরিবার সর্বত্র সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা সৃষ্টি করছে।

[বীরভূম থেকে উদ্ধার প্রচুর বিস্ফোরক]

অন্যদিকে, রামনবমীর মিছিল নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি তরজা অব্যাহত। গেরুয়া শিবিরের রামনবমীর পাল্টা হনুমান পুজোতে মাতে শাসকদল তৃণমূল। বীরভূমে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল স্বয়ং হনুমান পুজোয় অংশ নেন। একইসঙ্গে গতকাল বাঁকুড়ায় প্রশাসনিক বৈঠকের পরই সংঘ পরিবারের কাণ্ডকারখানায় ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এই উৎসবের নামে রাজ্যে ধর্মীয় বিভেদ সৃষ্টি করা হচ্ছে। তিনি বিজেপির উদ্দেশে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক মেরুকরণের জন্য রামনবমীকে ব্যবহার করবেন না, হাজার বছর ধরে এই উৎসব পালিত হচ্ছে। এটা বিজেপির একার কুক্ষিগত নয়। তারা দলীয় পতাকায় ‘ওম’ লিখে মিছিল করছে। ‘ওম’ শব্দের অপমান করার সাহস কে দিয়েছে ওদের?’ মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের মমতা কটাক্ষ করে বলেন, এরা দিনে সিপিএম করে আর রাতে বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রীর কটাক্ষের পাল্টা দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘রাজ্যে বিজেপির শক্তিবৃদ্ধিতে ভয় পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।’ এরই মধ্যে শাহি ইমামের এমন দাবি বিতর্কের আগুনে ঘৃতাহুতি করলে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে