১০ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিক্রম রায়, কোচবিহার: ফের বিজেপির গোষ্ঠী সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল কোচবিহারের তুফানগঞ্জ। জেলা সভাপতি মালতী রাভার সংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ শুরু হয় বিজেপির দুটি গোষ্ঠীর মধ্যে। দীর্ঘক্ষণ পর কোতোয়ালি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনে। এখনও এলাকায় মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

শুক্রবার রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, রাজ্যে বিজেপির মোট ৩৩টি সাংগঠনিক জেলার মধ্যে ২৩টি জেলার সভাপতি পদের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬টি জেলায় নতুন মুখ সভাপতি পদে আনা হয়েছে। ফের কোচবিহারের জেলা সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন মালতী রাভা। রবিবার তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়ার জন্য স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের তরফে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। রবিবার নির্ধারিত সময়েই শুরু হয় অনুষ্ঠান। অভিযোগ, সেই সময় বিজেপির অপর গোষ্ঠীর সদস্যরা প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন নিয়ে অনুষ্ঠানে হাজির হয়। তাঁরা অভিযোগ করেন, বিজেপির মণ্ডল সভাপতি গঠনের ক্ষেত্রেও কোনওরকম স্বচ্ছতা ছিল না। জেলা সভাপতি নির্বাচনের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছে। পাশাপাশি, প্রশ্ন তোলেন, কোনওরকম দায়িত্ব পালন না করা সত্ত্বেও কেন মালতি দেবী পুনরায় জেলা সভাপতির দায়িত্ব পেলেন।

[আরও পড়ুন: লাভপুরে সিপিএম সমর্থকদের হত্যা মামলা, সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিটে নাম মুকুল-মনিরুলের]

এরপরই যারা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন তাঁদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন অপর গোষ্ঠীর সদস্যরা। দু’পক্ষই আক্রমণ করে প্রতিপক্ষকে। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় কোতোয়ালি থানার পুলিশ। বেশ কিছুক্ষণ পর আয়ত্তে আসে পরিস্থিতি। এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে মালতি দেবী বলেন যে, তুফানগঞ্জে বিজেপির বেশ কিছু বহিষ্কৃত নেতা রয়েছেন, তৃণমূলের উসকানিতে তাঁরা এহেন কাণ্ড ঘটাচ্ছে। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। যাতে নতুন করে এলাকায় উত্তেজনা না ছড়ায় সেই কারণে মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

[আরও পড়ুন: ‘নিজের স্কুলের দিনগুলো মনে পড়ছে’, পরিদর্শনে গিয়ে আবেগপ্রবণ বীরভূমের জেলাশাসক]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং