BREAKING NEWS

১ কার্তিক  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রীর আদর্শই পাথেয়, টাকা-গয়না পেয়েও ফেরালেন পঞ্চায়েত কর্মী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 14, 2018 2:04 pm|    Updated: September 3, 2019 1:59 pm

Inspired by Mamata’s ‘honesty’, man returns lost treasure to owner

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: মুখ্যমন্ত্রীর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সততার নজির গড়লেন এক পঞ্চায়েত কর্মী। ফিরিয়ে দিলেন নগদ দেড় লক্ষ টাকা এবং সোনা ও হীরের গয়না ভরতি ব্যাগ। চতুর্থ শ্রেণির কর্মী বেচারাম পাত্রের সততায় গর্বিত হুগলির পলতাগড়-বারুইপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্যান্য কর্মীরা। এমন একটি কাণ্ড ঘটিয়েও বিশেষ হেলদোল নেই বেচারামবাবুর। পঞ্চায়েতে চতুর্থ শ্রেণির ওই কর্মীর সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘আমি মুখ্যমন্ত্রীর সততার আদর্শে বিশ্বাসী। তাঁর আদর্শই সবসময় আমাদের  এগিয়ে নিয়ে চলে।’

[ছাত্র সংঘর্ষে উত্তপ্ত বিশ্বভারতী চত্বর, আহত ১]

হুগলির  বলরামবাটি এলাকায় থাকেন বেচারাম পাত্র। স্থানীয় পলতাগড়-বারুইপাড়া পঞ্চায়েতের চতুর্থ শ্রেণির কর্মী তিনি। ক’টাকাই বা বেতন পান! কিন্তু, সততার আদর্শে অবিচল বেচারামবাবু। রোজ বাড়ি থেকে সাইকেল চালিয়ে স্টেশনে আসেন। ট্রেন করে অফিসে যান। মঙ্গলবার সকালেও সাইকেলে করেই স্টেশনে আসছিলেন ওই পঞ্চায়েত কর্মী। রাস্তায় একটি ব্যাগ কুড়িয়ে পান তিনি। অফিসে যাওয়ার তাড়ায় ব্যাগটি আর খোলেননি। অফিসে পৌঁছনোর পর, সহকর্মীদের ব্যাগ কুড়িয়ে পাওয়ার ঘটনাটি জানান বেচারামবাবু। পলতাগড়-বারুইপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অফিসে ব্যাগটি খোলা হয়। দেখা যায়, ব্যাগে রয়েছে নগদ দেড় লক্ষ টাকা এবং সোনা ও হীরের গয়না! গয়নার মূল্য লক্ষাধিক টাকার কম নয়। ব্যাগে ফজরুল রহমান নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর ভোটার আইডি কার্ড ও ফোন নাম্বার পাওয়া যায়। ফোন করে তাঁকে পঞ্চায়েত অফিসে ডেকে পাঠান প্রধান জয়দেব বাড়। স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে  নগদ টাকা ও গয়না ভরতি ব্যাগটি ফিরিয়ে দেওয়া হয়। হারানো ব্যাগ ফিরে পেয়ে আপ্লুত ফজরুল রহমান। তিনি বলেন, ‘ভাবতে অবাক লাগছে, আজও এমন সৎ মানুষ আছেন। ওঁর জন্যই সবকিছু ফিরে পেলাম।’

[দুটি হাতই অসাড়, অদম্য মনের জোরে তবু মাধ্যমিক পরীক্ষা দিচ্ছে হাসিবুল]

সহকর্মী বেচারাম পাত্রের সততায় গর্বিত পলতাগড়-বারুইপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্যান্য কর্মীরা। পঞ্চায়েত প্রধান জয়দেব বাড় বলেন, ‘আমার পঞ্চায়েতের কর্মী বেচারাম পাত্র সততার যে নিদর্শন রেখেছেন, তাতে আমি গর্বিত।’ তবে যাঁকে নিয়ে এত কাণ্ড, তাঁর অবশ্য বিশেষ হেলদোল নেই। বেচারাম পাত্রের সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সততার আদর্শে বিশ্বাসী। তাঁর আদর্শই আমাদের পথ দেখিয়ে এগিয়ে নিয়ে চলে।’ সহকর্মীরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবারও পঞ্চায়েত অফিসে অন্যান্য দিনের মতোই স্বাভাবিকভাবে কাজকর্ম করেছেন বেচারামবাবু।

[দোকানে প্লাস্টিক ক্যারিব্যাগ রাখলেই জরিমানা ৪৫ হাজার]

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement