Advertisement
Advertisement

পেনশন হাতাতে বেধড়ক মারধর বউমার, প্রশাসনের দ্বারস্থ অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা

খুনের চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ।

Jalpaiguri: Elderly woman alleges murder threat from Son, his wife
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:June 15, 2018 12:04 pm
  • Updated:June 15, 2018 12:04 pm

শান্তুনু কর, জলপাইগুড়ি: সরকারি প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। শেষ বয়সে পেনশনটুকুই ভরসা। কিন্তু, সেই পেনশনের টাকাও ছেলে ও বউমা হাতিয়ে নিতে চাইছে বলে অভিযোগ। বিরাশি বছরের এক বৃদ্ধার অভিযোগ, পেনশনের টাকা হাতানোর জন্য তাঁকে মেরে ফেলারও চেষ্টা করেছে বউমা। বৃহস্পতিবার জলপাইগুড়ি শহরে জেলাশাসকের দপ্তরে প্রোটোকল অফিসারের কাছে অভিযোগ দায়ের করলেন মালবাজারের বাসিন্দা শোভা সাহা। স্থানীয় ক্রান্তি ফাঁড়ির ওসিকে অভিযোগ খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এদিকে শাশুড়িকে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শোভাদেবীর পুত্রববধূ নমিতা সাহা।

[ছেলে-বউমার অত্যাচারে ঘরছাড়া, থানায় অভিযোগ দায়ের সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধার]

Advertisement

জলপাইগুড়ির মালবাজার মহকুমার ক্রান্তি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ছিলেন শোভাদেবী। তাঁর তিন ছেলে ও দুই মেয়ে। মেয়েদের বিয়ে হয়ে গিয়েছে। দুই ছেলে থাকে জলপাইগুড়ি শহরে। ক্রান্তি এলাকার বা়ড়িতে বিরাশি বছরের মায়ের সঙ্গে থাকে শোভাদেবীর মেজ ছেলে রঞ্জন সাহা ও তাঁর স্ত্রী নমিতা। পেশায় কাপড়ের ব্যবসায়ী রঞ্জন। অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষিকা শোভা সাহার অভিযোগ, পেনশনের টাকা হাতানোর জন্য তাঁকে নিয়মিত মারধর করে মেজ ছেলে ও বউমা। শোভাদেবীর দাবি, গত রবিবার বাড়িতে তাঁকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় নমিতা। পড়ে গিয়ে মাথা ফেটে যায় ওই বৃদ্ধার। প্রথমে শোভা সাহাকে ভরতি করা হয় ক্রান্তি হাসপাতালে। পরে তাঁকে নিয়ে আসা হয় জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। একটু সুস্থ হতেই, বৃহস্পতিবার সকালে জেলাশাসক দপ্তরের গিয়ে প্রোটোকলের অফিসারের কাছে ছেলে ও বউমার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানালেন অবসরপ্রাপ্ত ওই স্কুল শিক্ষিকা। বস্তুত, এদিন সকালে যখন তিনি জেলাশাসকের দপ্তরে যান, তখনও মাথায় ব্যান্ডেজ বাধা ছিল। ক্রান্তি ফাঁড়ির ওসিকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

Advertisement

[ভাল-মন্দ ছোঁয়ার তফাতের পাঠ প্রাথমিকেই, হুগলিতে অভিনব উদ্যোগ]

এদিকে, বিরাশির বছরের বৃদ্ধা শোভা সাহার পাশে দাঁড়িয়েছে স্থানীয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। ওই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কর্মী পূজা সরকার বলেন,  ‘আমাদের কাছে খবর আসার পরেই আমরা অসহায় শিক্ষিকার পাশে এসে দাঁড়িয়েছি। তাঁকে অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচাতে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছি।’ স্বেচ্ছাসেবীর সংগঠনের ওই কর্মীরও অভিযোগ, পেনশনের টাকা ও বসত বাড়িটি হাতিয়ে নিতেই শোভাদেবীর উপর অত্যাচার চালাচ্ছে তাঁর ছেলে ও বউমা। এদিকে, বৃদ্ধা শাশুড়িকে মারধরের অভিযোগ অবশ্য অস্বীকার করেছেন শোভা সাহার বউমা নমিতা সাহা। যদিও এই ঘটনা নিয়ে বিশেষ কিছু বলতে চাননি তিনি।

[দেশলাই কাঠিতে বিশ্বকাপের রেপ্লিকা গড়ে তাক লাগালেন কালনার শিল্পী]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ