BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আগ্নেয়াস্ত্র হাতে ভোটের মিছিল, তদন্তে পুলিশের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ বিচারক

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 26, 2019 9:19 pm|    Updated: April 27, 2019 12:52 pm

An Images

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: ভোটের মিছিলে আগ্নেয়াস্ত্র। সেই ঘটনায় ফের প্রশ্নের মুখে পড়ল পুলিশ। পুলিশের ভূমিকা নিয়ে এবার প্রশ্ন তুললেন বিচারক। তড়িঘড়ি ডাকা হল সাঁইথিয়া থানার ওসিকে। তলব করা হল সিডি। একটি ঘটনায় কীভাবে দু’টি পৃথক মামলা হয় এই প্রশ্ন তুলে রীতিমতো বিরক্ত বিচারক৷ যদিও বিচারকের প্রশ্নের পর সরকারি তরফে দু’টি মামলা এক করার লিখিত আবেদন জানানো হয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: মহুয়াকে কুরুচিকর মন্তব্য, বিজেপি নেতার ভোটপ্রচারে নিষেধাজ্ঞা কমিশনের]

উল্লেখ্য, সাঁইথিয়া থানার হরিসরাতে গত ২৪ এপ্রিল অস্ত্র হাতে বাইক মিছিল হয়। সে ঘটনায় সাঁইথিয়া থানার বিডিও সোমনাথ দে বিকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ অভিযোগ দায়ের করেন। সাঁইথিয়া থানার পুলিশ শান্তনু ছিলেন এই মামলার তদন্তকারী অফিসার৷ অনুমতি না নিয়েই মিছিল, আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে আস্ফালন, বেআইনি জমায়েত-সহ অস্ত্র আইনে মামলা হয়। পরের দিন, মেঘদূতের বাড়ির খড়ের গাদা থেকে বন্দুকটি উদ্ধার হয়। যা নিয়ে ফের একটি মামলা করে পুলিশ। যাতে শুধুই অস্ত্র আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছে তাকে। ওই মামলার তদন্তকারী অফিসার স্বয়ং থানার ওসি সংগ্রাম চৌধুরী। একই ঘটনায় দু’টি মামলা দেখে থানার ওসিকে ডেকে পাঠান বিচারক শান্তনু গঙ্গোপাধ্যায়।কিন্তু দুজন অফিসারের কথা শোনার পরেও কেন একই ঘটনায় দু’টি মামলা হল সেই কারণ খুঁজে পাননি বিচারক।

[ আরও পড়ুন: ভোটযুদ্ধে এগোলেন আরও একধাপ, মনোনয়ন জমা মিমির]

সরকারি আইনজীবী কেশব দেওয়াশি বলেন, ‘‘প্রথমটি সাধারণ অভিযোগ। পরেরটি অস্ত্র উদ্ধারের পরে।’’ যদিও বিচারক তাতে সন্তুষ্ট না হয়ে আগামী ৮ মে  ঘটনার সিডি তলব করেন। ততদিন অভিযুক্ত মেঘদূতকে জেল হেফাজতে থাকার নির্দেশ দেন। তবে আইনজীবী কেশব দেওয়াশি জানান, “আমরা দু’টি মামলাকে একসঙ্গে যুক্ত করে একটি মামলা চালানোর অন্য আদালতে আবেদন করেছি।”

ছবি:  সুশান্ত পাল৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement