BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভোটযুদ্ধে এগোলেন আরও একধাপ, মনোনয়ন জমা মিমির

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 26, 2019 4:33 pm|    Updated: April 26, 2019 4:33 pm

An Images

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: ভোটের আগে প্রতিদিনই প্রচারে ব্যস্ত মিমি চক্রবর্তী৷ তবে শুক্রবার একেবারে অন্যরকমভাবে শুরু করলেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী৷ এদিন আলিপুরে জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রাওয়ের কাছে মনোনয়ন জমা দেন তিনি৷ তাঁর সঙ্গে ছিলেন আরাবুল ইসলাম-সহ বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতা-নেত্রী৷ তারকা প্রার্থীর মনোনয়ন জমা বলে কথা, তাই এদিন জেলাশাসকের দপ্তরের বাইরে ভিড় জমান বহু মানুষ৷ মনোনয়ন জমা দিয়ে জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসের সুর মিমির গলায়৷

MIMI

[ আরও পড়ুন: “প্রয়োজনে ফের বন্ধু ইমরানের সঙ্গে কথা বলব”, সমালোচনার জবাব মুনমুনের]

ছোটপর্দা দিয়ে কাজ শুরু৷ মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই টলিপাড়ায় দিব্যি জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছেন তিনি৷ বক্স অফিসে একের পর এক হিট ছবি৷ কেরিয়ারের মধ্যগগনে সূচনা দ্বিতীয় ইনিংসের৷ পা রাখলেন রাজনীতির আঙিনায়৷ নাম লিখিয়েছেন ঘাসফুল শিবিরে৷ লোকসভা নির্বাচনে তাঁর উপরেই ভরসা রেখেছে দল৷ যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকেই লড়ছেন মিমি চক্রবর্তী৷ নিন্দুকরা বলছেন, অভিনেত্রী হিসাবে মিমির জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে ভোট বৈতরণী পেরতে চাইছে তৃণমূল৷ তাই নাকি এই আসনে প্রার্থী হিসাবে একজন অভিনেত্রীকে বেছে নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূল নেত্রী স্বয়ং৷ মিমি অভিনেত্রী হলেও, তাঁর রাজনীতি সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রয়েছে বলেই দাবি নেতৃত্বের৷ তারকা প্রার্থী সাংসদ হতে পারলে সকলের কথা ভাববেন বলেই আস্থা ঘাসফুল শিবিরে৷

MIMI

[ আরও পড়ুন: মহুয়াকে যৌন হেনস্তামূলক মন্তব্য, বিজেপি নেতাকে শাস্তির নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের]

লোকসভা নির্বাচনে এই আসন থেকে বিজেপির হয়ে ভোটে লড়ছেন অনুপম হাজরা৷ তৃণমূলে থাকাকালীন বোলপুরের সাংসদ ছিলেন তিনি৷ তবে দলের সঙ্গে মতবিভেদের জেরে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন বিশ্বভারতীর সমাজতত্ত্বের অধ্যাপক অনুপম হাজরা৷ ভিন জেলার বাসিন্দা তার উপর আবার দলবদলকারী অনুপমকে এই লোকসভা কেন্দ্রের ভোটাররা ঠিক কীভাবে নেবেন, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে৷ আবার রাজনীতিতে একেবারে আনকোরা মিমি এবং অনুপমের বিপরীতে বামেদের হয়ে লড়ছেন বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য৷ তবে অনেকেই বলছেন, দুঁদে রাজনীতিক হলেও বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের নাকি জনসংযোগ বিশেষ নেই৷ সেটি ভোটবাক্সে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে কিনা, তা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত বাম শিবির৷ মিমি-অনুপম হাজরা এবং বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের মধ্যে কে শেষ হাসি হাসবেন সেটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন৷ উত্তর জানা যাবে আগামী ২৩ মে৷

দেখুন ভিডিও:

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement