Advertisement
Advertisement
North Bengal Medical College

বিপদের বন্ধু! রেল দুর্ঘটনায় হাসপাতালে ভর্তি আহতদের রক্ত দিলেন জুনিয়র ডাক্তাররাই

রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে হাসপাতাল চত্বরে সাহায্য়ের জন্য শিবির খুলে বসলেন বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন।

Junior doctors of North Bengal Medical College donate blood during crisis of rail accident
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:June 17, 2024 8:48 pm
  • Updated:June 17, 2024 8:48 pm

নন্দন দত্ত, শিলিগুড়ি: ছুটির দিনে সব কাজ ফেলে পাশে দাঁড়াল উত্তরবঙ্গ প্রশাসন। সোমবার ছিল ইদের ছুটি। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজের প্রায় সব বিভাগ বন্ধ। কিন্তু সকালেই ঘটে গিয়েছে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। ফাঁসিদেওয়ার কাছে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসের (Kanchanjunga Express) পিছনে মালগাড়ির ধাক্কায় প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৮ জন, আহত ৪৫। সকাল ৯টার পর থেকেই একের পর এক আহতের ভিড়। খবর পেয়েই সকালে হাজির হলেন মেডিক্যাল কলেজের সিনিয়র থেকে জুনিয়র ডাক্তাররা। হাসপাতালের ডিন সন্দীপ সেন এসেই রক্তের জন্য স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে (NGO) ডাক দিলেন। বাতিল হল সব দপ্তরের সবরকম ছুটি। দিনরাতের জন্য খুলে গেল হাসপাতালের ব্লাড ব্যাঙ্ক। প্রাণ বাঁচানোর তাগিদে সেখানে গিয়ে রক্ত দিতে কসুর করলেন না কেউ। জুনিয়র ডাক্তাররা নিজেরাই এগিয়ে গেলেন রক্তদানে।

বেলা বাড়তেই উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজের (North Bengal Medical College) ইসিজি, এক্স-রে সব বিভাগ খুলে গেল। ডিন সন্দীপ সেন জানালেন, যাঁদের আজ ছুটি দেওয়া হয়েছিল, তাঁদের দ্রুত ছেড়ে দুর্ঘটনাগ্রস্তদের জন্য বাড়তি বেড রেডি করা হল। হাসপাতালের জুনিয়র ডাক্তাররা এসে দল বেঁধে হাজির। মেডিক্যাল কলেজের টিএমসিপি (TMCP) সংগঠনের সদস্যরা টেবিল পেতে বসে পড়েন সাহায্যের জন্য। সংসদ সভাপতি সোহম মণ্ডলের কথায়, ”আমরা সঙ্গে সঙ্গেই দুর্ঘটনায় জখমদের ভর্তি থেকে তাঁদের চিকিৎসার বিষয়ে সাহায্য করছি। সন্ধ্যা পর্যন্ত অন্তত ৫০ জন জখম যাত্রীকে ভর্তি করা হয়েছে।” খবর ছড়িয়ে পড়তেই যাত্রীদের সন্ধানে হাসপাতাল জুড়ে হাহাকার। সকাল থেকে পুলিশকর্মীরা হাজির। ছাত্র সংগঠন এআইডিএসও সাহায্যের জন্য টেবিল খুলে বসে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ডিউটি বদলই কাল! রেল দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসের গার্ড]

মাটিগাড়া পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যরা পানীয় জল, শুকনো খাবার নিয়ে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে হাজির। মাটিগাড়া পঞ্চায়েতের উপপ্রধান রেখা মল্লিক জানালেন, ”দুর্ঘটনাগ্রস্ত রোগীর আত্মীয়দের পাশে দাঁড়াতে খাবার থেকে জল নিয়ে আমরা হাজির।” পিছিয়ে নেই বিজেপিও। তারাও শিবির খুলেছে। এলাকার বিজেপি সাংসদ (BJP MP) রাজু বিস্তা হাসপাতালের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঢুকে রোগীদের সঙ্গে কথা বললেন। রক্ত সংগ্রহ করতে ফোনও করলেন। সবরকম সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিলেন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ছুটি শেষে ট্রেনে উঠেও কাজে ফেরা হল না! ‘অভিশপ্ত’ কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস প্রাণ কাড়ল আবগারি অফিসারের]

সাংসদ রাজু বিস্তা যেতেই এলেন লোকসভা ভোটে (2024 Lok Sabha Election)  তৃণমূলের প্রার্থী গোপাল লামা। তৃণমূলের (TMC) দার্জিলিং জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক মদন ভট্টাচার্যর কথায়, ”ছুটির সকালে এমন দুর্ঘটনার খবর যেন আর শুনতে না হয়। রাজ্য সরকার দুর্ঘটনাগ্রস্তদের পাশে সবসময় আছে।” শিলিগুড়ি (Siliguri) পুলিশ কমিশনার সি সুধাকর হাজির হলেন হাসপাতালে। কথা বললেন স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে। তিনি জানালেন, রক্ত থেকে বাকি সব সাহায্যের জন্য প্রস্তুত। তিনি ঘুরে ঘুরে হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসা থেকে ওয়ার্ডের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন।

দেখুন ভিডিও: 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ