২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

স্টাফ রিপোর্টার, শিলিগুড়ি: শচীনকে নিয়ে সমস্যা নেই। কিন্তু বেঁকে বসেছে সৌরভ। দু’দিন পর শুরু হবে সাফারি। তার আগে এখনও মান ভাঙেনি তার। ফলে কার্যত বিপাকে শিলিগুড়ির বেঙ্গল সাফারি পার্কের কর্তারা। খোলা এনক্লোজারে ছাড়ার পর নির্ধারিত নাইট শেলটারে ঢুকতে নারাজ পার্কের নতুন অতিথিদের অন্যতম চিতাবাঘ সৌরভ। অপর চিতা শচীনের মান ভাঙলেও সৌরভ এখনই পোষ মানতে নারাজ। শীতল ও কাজল নামের নবাগতা দুই স্ত্রী চিতাকে আবার গেট খুলে ছেড়ে দিলেও তারা বের হতে চাইছে না। তবে প্রথম দফায় তাদের চেয়ে সৌরভই এখন মাথাব্যথা। কারণ শচীন-সৌরভ নিয়েই প্রথম দফায় সাফারি শুরু করার কথা।

[খোঁজ মিলল টিটাগড় থেকে নিখোঁজ মা-মেয়ের, গ্রেপ্তার গৃহবধূর প্রেমিক]

জানানো হয়েছে, নতুন অবস্থায় চিতাদের ক’দিন সময় লাগবে ধাতস্থ হতে। সাফারি পার্কের অধিকর্তা অরুণ মুখোপাধ্যায় জানান, পূর্ব নির্ধারিত ১ জুলাইতেই সাফারি শুরু হবে। কোনও সমস্যা নেই। সব পরিকল্পনামাফিক করা হচ্ছে। পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবও জানিয়েছেন, সাফারি শুরু করতে কোনও সমস্যা হবে না। ১ জুলাই থেকে লেপার্ড সাফারি চালু করার লক্ষ্যে প্রস্তুতি শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। সেই লক্ষ্যে দু’টি পুরুষ চিতাবাঘ শচীন ও সৌরভকে ক্রলে ছাড়া হয়েছে ক’দিন আগেই। তাদের আনা হয়েছে জলদাপাড়ার দক্ষিণ খয়েরবাড়ি ব্যাঘ্র পুনর্বাসন কেন্দ্র থেকে। কয়েকদিন পর কোচবিহারের রসিকবিল থেকে আনা হয় আরও দু’টি চিতা। শীতল ও কাজল নামের স্ত্রী চিতাবাঘ দু’টিকে ক্রলে ছাড়ার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু তারা বাইরে বেরই হয়নি। খোলা এনক্লোজারে ছাড়ার পর শচীনকে ফের ক্রলে ফেরানো গেলেও গত কয়েকদিন রাতেও ঘরে ফেরেনি সৌরভ। ফলে সাফারির গাড়ি নিয়ে ট্রায়াল দেওয়া শুরু হয়েছে।

যদিও গাড়ি দেখেও মুখ ফিরিয়ে রয়েছে সে। তবে খাবার দিলে সেখানেই খেয়েছে। শচীন নির্দেশ মেনে গেলেও চিন্তার ভাঁজ বাড়িয়েছে সৌরভ। রাতভর খেলা এনক্লোজারে ঘুরে বেড়িয়েছে সে। ঘুম ছুটেছে সাফারি পার্কের কর্মীদের। প্রয়োজনে একটি চিতাবাঘ দিয়েই লেপার্ড সাফারি শুরু করার একটা পরিকল্পনাও রয়েছে। যদিও শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত চেষ্টা করা হচ্ছে যে দু’টিকেই নির্বিঘ্নে সাফারির জন্য রাখার। পার্ক সূত্রে খবর, এনক্লোজারে ছাড়া হলেও নির্দিষ্ট সময় অন্তর ফের খাঁচায় ঢোকানো বের করাই নিয়ম। ক্রলে খাবার দেওয়া হয়। এবং প্রয়োজনে তাদের চিকিৎসা ইত্যাদি দেওয়া হয়। তবে সমস্যা হওয়ায় সৌরভকে বাইরেই খাবার দেওয়া হয়েছে। চারটি চিতাবাঘই নতুন হওয়ায় এখনও খাপ খাইয়ে নিতে পারেনি। এতদিন তারা ছোটো জায়গায় ছিল। বড় জায়গা পেয়ে ধাতস্থ হতে সময় নিচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

[মৃত্যুর পর মুক্তিপণ চেয়ে ফোন, বীরভূমে ইঞ্জিনিয়ার খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং