৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শেষবেলায় বেশ খামখেয়ালিপনা দেখাচ্ছে শীত। কখনও তাপমাত্রার পারদ হালকা উঠছে, কখনও আবার ছিঁটেফোঁটা বৃষ্টি, কখনও বা কুয়াশায় ঢেকে যাচ্ছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত। সপ্তাহের মধ্যভাগে শহর কলকাতা-সহ জেলার বিভিন্ন প্রান্ত কুয়াশাচ্ছন্ন। পাশাপাশি দিনের শুরুতেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিতে কিছুটা সিক্ত কলকাতা। যার নিট ফল, তাপমাত্রার পারদ বেশ কিছুটা নামল। যদিও হাওয়া অফিসের অঙ্ক অনুযায়ী, সেই তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি বেশি। বেলা গড়ালেও কুয়াশা কেটে রোদের দেখা মেলেনি। সপ্তাহান্তেও এমনই আবহাওয়া থাকবে বলে পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের।

বৃহস্পতিবারের দিনটা কুয়াশাতেই কাটবে। তবে শুক্রবার থেকে শেষলগ্নে ফের হাড় কাঁপিয়ে দিতে ফিরবে শীত।আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস এমনই। উত্তরবঙ্গেও কুয়াশার দাপটে জনজীবন বিপর্যস্ত। যানবাহন চলছে ধীর গতিতে। বিশেষত দুর্ঘটনা এড়াতে উত্তরবঙ্গগামী যে কোনও ট্রেনেরই গতি অত্যন্ত শ্লথ। নির্দিষ্ট সময়ের তুলনায় অনেক বিলম্বেই চলছে ট্রেন। তার উপর আবার সপ্তাহ শেষে শৈত্যপ্রবাহ এবং বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। শীতের এই খামখেয়ালিপনায় সাধারণ জনজীবন ব্যাহত করতে পারে। পরিস্থিতি আরও কিছুটা জটিল হবে বলে মনে করছেন আবহাওয়বিদরা।

[আরও পড়ুন: মালদহে ট্রেনের কামরায় উদ্ধার মহিলার মৃতদেহ, কারণ ঘিরে ধোঁয়াশা]

এদিকে, উত্তর ভারতে শীত একেবারে ভরপুর মেজাজে। হিমাচল প্রদেশ ঢেকে গিয়েছে পুরু বরফে। সিমলা, কুলু, মানালিতে ভারী তুষারপাত চলছে। যার জেরে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা, সেতু। বরফপ্রাপ্তির আনন্দে পর্যটকরা হিমাচলে পাড়ি দিলেও, রাস্তা বন্ধ হয়ে পড়ায় আপাতত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। দিন দশেক আগেও ভারী তুষারপাতের জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল রাস্তাঘাট। চলতি সপ্তাহেও সেই একই পরিস্থিতি। কাশ্মীর উপত্যকায় তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে। যদিও এই পরিবেশ শীতপ্রেমীদের কাছে বেশ উপভোগ্য। মাসের শেষদিকে বিদায় নেওয়ার আগে দাপটে ব্যাটিং করে যাচ্ছে শীত।

[আরও পড়ুন: ‘দিলীপ ঘোষের পাগলা গারদে থাকা উচিত’, বিজেপি রাজ্য সভাপতিকে তোপ জ্যোতিপ্রিয়র]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং