৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

নবেন্দু ঘোষ, বসিরহাট:  হাওড়ায় যখন বসতিতে গিয়ে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শুনছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তখন বসিরহাটে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বেধড়ক মার খেলেন বিজেপির এক নেত্রী! অভিযোগ, বিজেপির রাজ্য সভাপতির গাড়ির দিকে এগোতেই রীতিমতো চুলের মুঠি ধরে তাঁকে মারধর করতে শুরু করেন দলেরই মহিলা কর্মীদের একাংশ। এদিকে দলকে বদনাম করতেই তৃণমূলকর্মীরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি করেছেন বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দুলাল রায়। 

[আরও পড়ুন: গঙ্গারামপুর পুরসভার চেয়ারম্যান পদে এবার অর্পিতা ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতা]

রাজ্যজুড়ে বিজেপির সদস্য সংগ্রহ অভিযান চলছে। সোমবার সকালে সেই কর্মসূচিতে যোগ দিতেই বসিরহাটে গিয়েছিলেন দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। জানা গিয়েছে, দিলীপবাবুর সঙ্গে কথা বলিয়ে দেওয়ার জন্য কয়েকজন মহিলাকে নিয়ে বৈঠকে হাজির হন বাসন্তী ঘোষ নামে স্থানীয় এক বিজেপি নেত্রী। কিন্তু সভা চলাকালীন তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি বিজেপির রাজ্য সভাপতি। জানানো হয়, সভা শেষ হলে ওই মহিলাদের সঙ্গে কথা বলবেন দিলীপ ঘোষ। সেইমতো দুপুরে যখন বৈঠক শেষ করে গাড়ির দিকে এগোচ্ছিলেন দিলীপ ঘোষ, তখন ভিড় ঠেলে তাঁর কাছে যাওয়ার চেষ্টা করেন বাসন্তীদেবী। কিন্তু দলের রাজ্য সভাপতির সঙ্গে কথা তো বলতে পারেনইনি, উলটে  চুলের মুঠি ধরে দলের ওই নেত্রীকে বিজেপির মহিলা কর্মীদের একাংশ বেধড়ক মারধর করতে শুরু করেন বলে অভিযোগ। এমনকী, রাস্তায় ফেলে বাসন্তী ঘোষকে বেধড়ক মারধর করা হয়। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। শেষপর্যন্ত বিজেপি কর্মীরাই কোনওমতে পরিস্থিতি সামাল দেন। আক্রান্ত বিজেপি নেত্রী বাসন্তী ঘোষের বাড়ির হাড়োয়ায় বলে জানা গিয়েছে।

কিন্তু কেন এমনটা হল?  বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার সভাপতি দুলাল রায়ের বক্তব্য, সম্প্রতি তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন বাসন্তী ঘোষ। সভা ভেস্তে করতে ও দলকে বদনাম করতে তাঁর পুরনো দলের কর্মীরাই এই ঘটনা ঘটিয়েছেন।

[আরও পড়ুন:  অর্থ দপ্তরের অনুমতি ছাড়া পুরসভায় কাজ কেন? ফিরহাদকে তিরস্কার মুখ্যমন্ত্রীর]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং