BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পাহাড়ের উন্নয়নে সমঝোতা নয়, কড়া হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: September 5, 2018 1:23 pm|    Updated: September 5, 2018 1:23 pm

Mamata Banerjee harps development tune in Hills

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাহাড়ের উন্নয়নের সঙ্গে কোনও সমঝোতা করা হবে না৷ বুধবার পাহাড় সফরের কর্মসূচিতে কাটছাঁট করে মংপুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাস মঞ্চ থেকে নাম না করে গুরুংকে কড়া ভাষায় চ্যালেঞ্জ জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ পাহাড়ে কর্মসংস্থান বৃদ্ধি ও শিক্ষার মানকে আরও উন্নত করতে রাজ্য সরকারের বেশ কিছু পরিকল্পনার কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী৷ একই সঙ্গে পাহাড়ে হোম ট্যুরিজমের গুরুত্ব বাড়াতেও জিটিএ বোর্ডকে নির্দেশ দেন তিনি৷ এডুকেশন হাব থেকে শুরু করে পাহাড়ে অন্তত ২৮ হাজার পড়ুয়াকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী৷

[মদের দোকান চালাচ্ছেন খোদ সাংসদের নিরাপত্তারক্ষী! প্রতিবাদে সরব এলাকাবাসী]

এদিন মংপুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাস অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল বিকাল তিনটে নাগাদ৷ কিন্তু, মাঝেরহাট সেতু ভাঙার দুর্ঘটনার খবর পেয়ে চূড়ান্ত উদ্বেগ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ মঙ্গলবার রাতেই কলকাতা ফিরতে চান তিনি৷ সবদিক খতিয়ে দেখার পর সফরে কাটছাঁট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ দার্জিলিং হিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাসের সময় এগিয়ে আনা হয়৷ সফরে কাটছাঁট করার জন্য এদিন পাহাড়ের বাসিন্দাদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন মুখ্যমন্ত্রী৷ জানা গিয়েছে, আজ বিকেলের বিমানে বাগডোগরা থেকে ফিরছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এরপর যাবেন মাঝেরহাট ও এসএসকেএম হাসপাতালে৷

[লালকুঠি ঘিরে পাহাড়ে নতুন পর্যটন কেন্দ্র, দার্জিলিংয়ে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর]

তবে, সফর সূচি ছোট করে আনা হলেও পাহাড়ের উন্নয়নে ব্যাঘাত ঘটেনি৷ দার্জিলিংয়ে জিটিএ’র সঙ্গে রাজ্য সরকারের বৈঠকও শেষে হয়েছে৷ পাহাড়ের উন্নয়ন নিয়ে কোনও সমঝোতা করা হবে না বলেও এদিন সাফ জানিয়ে দেন৷ স্বল্পমেয়াদি,  মধ্যমেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি গুচ্ছ উন্নয়ন কর্মসূচি রূপায়নের লক্ষ্যে এদিন একটি কমিটিও গঠন করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আগামী ছ’মাসের মধ্যে ওই কমিটিকে রিপোর্ট পাঠানোরও নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

[ভাতের থালায় ফোঁটা ফোঁটা রক্ত, ময়ূরেশ্বরে যুবক খুনে রহস্য জটিল]

শিক্ষা-স্বাস্থ্য-যোগাযোগ ও পর্যটনে আরও বেশি করে গুরুত্ব বাড়াতেও নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ স্বাধীনতার পর পাহাড়ে প্রথম কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাস করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘পাহাড় আমার হৃদয়৷ পাহাড় আমাকে সবসময় টানে৷ অবসর সময়ে আমি পাহাড়ে থাকতে চাই৷’’ উন্নয়ন প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘যারা কাজ করে না, তাদের জন্য উন্নয়নের কাজ বন্ধ করে রাখার কোনও মানেই হয় না৷ যারা পাহাড়ের মঙ্গল চায় না, তারা বাধা দিচ্ছে৷ পাহাড়ের উন্নয়নের সঙ্গে রাজ্য সরকার কোনওভাবেই সমঝোতা করবে না৷ পাহাড়ে উন্নয়ন হবেই৷ এই কাজে কেউ বাধা দিলে প্রশাসন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে৷’’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে