২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

আদিবাসী সমাজের পাশে মুখ্যমন্ত্রী, নিজে দাঁড়িয়ে থেকে ২০০ তরুণীর বিয়ে দেবেন মমতা

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: February 28, 2020 5:06 pm|    Updated: February 28, 2020 5:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কিছুদিন আগেরই ঘটনা। মালদহে আদিবাসীদের হিন্দুমতে বিয়ে দিয়ে ধর্মান্তকরণের অভিযোগ উঠেছিল বিশ্ব হিন্দু পরিষদের বিরুদ্ধে। ধুন্ধুমার বাধে ভিএইচপি ও ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যদের মধ্যে। বিধানসভায় মালদহের সেই ঘটনার নিন্দা করে বিজেপি বিধায়ককে একহাতও নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার মালদহে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে আদিবাসীদের বিয়ে দেবেন মমতা।

এই মুহূর্তে ভুবনেশ্বরে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখান থেকে ফিরেই মালদহে যাবেন মমতা। ৫ মার্চ সেখানে আদিবাসীদের একটি গণবিবাহের অনুষ্ঠান রয়েছে। রাজ্য সরকারের ‘রূপশ্রী’ প্রকল্পের আওতায় এই গণবিবাহের শরিক হবেন মুখ্যমন্ত্রীও। নিজে দাঁড়িয়ে থেকে ২০০ আদিবাসী মেয়ের বিয়ে দেবেন মমতা। গত লোকসভা নির্বাচনে আদিবাসী অধ্যুষিত মালদহে দুটি আসনেই পরাজয় হয় তৃণমূলের। আদিবাসী সমাজের তৃণমূল থেকে মুখ ঘোরানোর জেরে মালদহে ঝুলি শূন্যই থাকে মমতার। আদিবাসী সমাজকে ফের পাশে পেতে এই উদ্যোগ বলে সূত্রের খবর।

[আরও পড়ুন: হলদিয়া কাণ্ডে গ্রেপ্তার আরও ১, সাদ্দামের মুখোমুখি বসিয়ে ধৃতকে জেরার ভাবনা]

আদিবাসীদের পাশে সবসময় রয়েছে সরকার, এই বার্তাই দিতে চান মুখ্যমন্ত্রী। তাই ‘রূপশ্রী’ প্রকল্পের আওতায় এই গণবিবাহ আয়োজন করে আদিবাসী মেয়েদের বিয়ে দেবে সরকার। আর নিজে দাঁড়িয়ে থেকে পৌরহিত্য করবেন মুখ্যমন্ত্রী। উল্লেখ্য, ২ ফেব্রুয়ারি গাজোলের আলমপুরে প্রায় ২০০ যুবক-যুবতীকে নিয়ে গণবিবাহে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল ভিএইচপি‘। অভিযোগ, বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন আচমকাই ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির জনা কয়েক সদস্য সেখানে হাজির হয়ে অশান্তি বাঁধিয়ে দেন। তাঁরা অভিযোগ করেন, আদিবাসী তরুণীদের উপর চাপ দিয়ে তাঁদের ধর্মান্তরিত করেছেন VHP নেতারা। তারপর হিন্দু মতে তাঁদের বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যা আদিবাসী সম্প্রদায়ের রীতি বিরোধী। তাই তাঁরা এই বিয়ে কিছুতেই মেনে নেবেন না।

এই অভিযোগ ঘিরে দু’পক্ষের বচসা শুরু হয়। তারপর তা হাতাহাতিতে পৌঁছয়। হাতে লাঠি, বাঁশ নিয়ে ভিএইচপি কর্মীদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ার অভিযোগ ওঠে ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সমর্থকদের বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি ধুন্ধুমার হয়ে ওঠার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় গাজোল থানার পুলিশ। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে এক পুলিশ কর্মী আক্রান্ত হন। দিনেদুপুরে উত্তপ্ত পরিস্থিতির জেরে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে এলাকা। ৩৪ নং জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা। আধঘণ্টা পর সেই অবরোধ তুলে দেওয়া হয়। অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করে ফের শুরু হয় গণবিবাহের অনুষ্ঠান।

[আরও পড়ুন: কাটমানি নিয়ে কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে প্রচার, CCTV ফুটেজ দেখে চিকিৎসককে বেদম মার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement