BREAKING NEWS

০৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  সোমবার ২৩ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জমি বিবাদের জের, মায়ের সামনেই যুবককে কুপিয়ে মারল দুই দাদা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 23, 2018 12:51 pm|    Updated: May 23, 2018 12:51 pm

Man killed by elder brother in front of mother at Mograhat

দেবব্রত মণ্ডল, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: সম্পত্তির লোভে শরিকি কোন্দল নতুন কিছু নয়। কিন্তু এবারের ঘটনার নৃশংসতা ছাড়িয়ে গেল সবকিছুকে। মায়ের চোখের সামনেই দাদাদের হাতে খুন হতে হল ছোট ভাইকে। বাড়ি এবং জমি লিখে দিতে রাজি না হওয়ায় বাড়ির মধ্যেই ছোট ভাইকে কুপিয়ে মেরে ফেলল দুই দাদা। ঘটনাটি মগরাহাটের শালকিয়া মুন্সিপাড়ার।

[প্রথমবারেই বাজিমাত, জেলা পরিষদে সবচেয়ে বেশি ব্যবধানে জয়ী রানাঘাটের গৃহবধূ]

স্থানীয় সুত্রের খবর দীর্ঘদিন ধরেই মুন্সি পরিবারে জমি-জায়গা নিয়ে বিবাদ চলছিল চার ভাইয়ের মধ্যে। বাবা মারা যাওয়ার পর আলাদাই থাকত চার ভাই। বিবাহিত তিন ভাই স্ত্রীকে নিয়ে থাকত নিজেদের মতো। সম্পত্তির ভাগও নিজেদের মতো করেই বুঝে নিয়েছিল তাঁরা। ছোট ভাই কাজল মুন্সি থাকতেন মাকে নিয়ে। বিধবা মায়ের দেখাশোনার দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনিই। কিন্তু মাঝে মাঝেই বড় ভাইদের সঙ্গে জমি জায়গা সংক্রান্ত ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তেন কাজল। অভিযোগ, মায়ের সম্পত্তি তাদের নামে লিখে দেওয়ার জন্য চাপ দিত দাদারা। যার জেরে মাঝে মাঝেই বাঁধত বচসা। গতকাল সেই বিবাদ চরমে ওঠে। গভীর রাতে নিয়ে ভাইয়ের উপর চড়াও হয় দুই দাদা। তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় কাজল মুন্সির।

[সেবাই ধর্ম, বিনা পরিশ্রমিকে রোজ রাতে মসজিদ পাহারা দেন হিন্দু যুবক]

কাজলের মা রহিমা মুন্সি জানিয়েছেন, মাঝে মাঝেই ছোট ছেলেকে বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার জন্য চাপ দিত বড় দুই ভাই। তাঁর পরামর্শেই সেই প্রস্তাবে রাজি হয়নি কাজল। কারণ ওই বাড়িটি ছাড়া তাদের আর কোনও আশ্রয়স্থল ছিল না। এর আগেও বাড়িটি দখল করার জন্য বেশ কয়েকবার ছোট ছেলেকে মারধরও করেছে দাদারা। মারধর করা হত তাঁকেও। চাপ দেওয়া হত সম্পত্তি লিখে দেওয়ার জন্য। কিন্তু গতকাল ঘটনা এত নৃশংস রূপ নেবে তা কল্পনা করতে পারেননি রহিমা দেবীও। ছোট ছেলেকে হারিয়ে আপাতত অসহায় তিনি। ঘটনার পর দুই ভাই পলাতক। এখনও গ্রেপ্তার হয়নি অভিযুক্ত টিপু মুন্সি এবং কচি মুন্সি (ডাকনাম)।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে