২৪ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  রবিবার ৭ জুন ২০২০ 

Advertisement

‘মমতার সরকারের এক্সপায়ারি ডেট চলে এসেছে’, সংকল্প যাত্রা থেকে তোপ বাবুলের

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 22, 2019 9:23 pm|    Updated: October 22, 2019 9:25 pm

An Images

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্তাকে আক্রমণের প্রসঙ্গে সংকল্প যাত্রা থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ দাগলেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, “মমতা বন্দোপাধ্যায় সরকারের এক্সপায়ারি ডেট চলে এসেছে। ২০১৯ সালে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকারের অর্ধেক শেষ হয়েছে, ২০২১ সালে পুরোপুরি সাফ হয়ে যাবে। রাজ্যের মানুষ আমাদের পাশেই আছে।” পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন পরিকল্পনাও সকলের সামনে তুলে ধরেন বাবুল সু্প্রিয়।

গান্ধীজির অহিংসার বার্তাকে হাতিয়ার করে মঙ্গলবার রানিগঞ্জে সংকল্প যাত্রায় অংশ নেন সাংসদ তথা কেন্ত্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। বিকেলে রানিগঞ্জের পাঞ্জাবি মোড় থেকে শুরু করে সংকল্প যাত্রা শেষ হয় স্টেশনে সংলগ্ন এলাকায়। মিছিল থেকে বাংলাকে হিংসা ও দুর্নীতিমুক্ত করে নতুন সরকার গঠনের আহ্বান জানান কেন্দ্রীয়মন্ত্রী। বাবুলের কথায়, অহিংসার পথে গিয়ে যেভাবে গান্ধীজি ব্রিটিশ পরাধীনতা থেকে মুক্তি দিয়ে স্বাধীন ভারত বানিয়েছিলেন, সেই পথে চলেই পশ্চিমবঙ্গেরও মুক্ত হওয়ার সময় এসে গিয়েছে।

বাবুল সুপ্রিয়র সঙ্গে এদিন সংকল্প যাত্রায় অংশ নেন বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষণ ঘড়ুই-সহ রানিগঞ্জের বিজেপি নেতা-কর্মীরা। ছিলেন বাবুল সুপ্রিয়র বড় মেয়ে শর্মিলীও। সংকল্প যাত্রা শেষে মন্ত্রী বলেন, ভোটের সময় পশ্চিমবঙ্গে সব থেকে বেশি হিংসার ঘটনা ঘটেছে। তাই অহিংসা ও পরিশীলিত সরকারের শাসন এরাজ্যে প্রয়োজন। যে সরকার দুর্নীতি করবে না বা দুর্নীতিকে চেপেও দেওয়ার চেষ্টা করবে না, এমন সরকার চাই। এদিন রাজ্যপালের ও রাজ্য সরকারের সংঘাত প্রসঙ্গেও সরকারকে নির্লজ্জ বলে কটাক্ষ করেন তিনি। পাশাপাশি, কালিম্পংয়ে বিজেপি সাংসদকে হেনস্তার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন বাবুল সুপ্রিয়।

উল্লেখ্য, বিজেপির এই যাত্রার মূল উদ্দেশ্য মোদি সরকারের নানা প্রকল্পের সঙ্গে গান্ধীর চিন্তা-ভাবনার কতটা মিল, সেটা সকলের সামনে তুলে ধরা। স্বচ্ছতা, দুর্নীতি, গ্রামীণ সমাজের উন্নয়নের মতো বিষয়গুলি নিয়ে গান্ধী যা বলেছিলেন তার সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের বহু প্রকল্পের যে মিল রয়েছে, সেটাই সকলকে বোঝানো।

দেখুন ভিডিও:

[আরও পড়ুন: রান্নাঘরে মরা ইঁদুর-পচা খাবার! বেহাল দশা দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement