২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পূর্ব বর্ধমানে পথশিশুদের জন্য ভ্রাম্যমান স্কুল, মিলবে মিড-ডে মিলও

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 20, 2018 2:01 pm|    Updated: November 12, 2018 5:27 pm

Mobile school for street-children in Burdwan

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: ভ্রাম্যমাণ চিকিৎসাকেন্দ্র, এমনকী রেস্তরাঁর কথা তো সকলেই জানেন৷ কিন্তু, ভ্রাম্যমান পাঠশালা কথা শুনেছেন কখনও? পথশিশুদের শিক্ষিত করতে তুলতে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন৷ বর্ধমান স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে আস্ত একটি ক্লাসরুম বানিয়ে চলছে পঠনপাঠন৷ বৃহস্পতিবার এই কর্মসূচি শামিল হয়েছিলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিক নারায়ণচন্দ্র পাল-সহ বিভিন্ন সরকারি স্কুলের ১২ জন শিক্ষক-শিক্ষিকাও৷ জানা গিয়েছে, বর্ধমান স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে ভ্রাম্যমাণ পাঠশালা পড়াশোনা করছে ৩০ জন পথশিশু৷

[উন্নাও-কাঠুয়া কাণ্ডের প্রতিবাদে হাওড়ার চেঙ্গাইলে রেল অবরোধ, দুর্ভোগে যাত্রীরা]

আত্মীয় পরিজনদের খোঁজ নেই৷ দু’বেলা ঠিকমতো খাবারও জোটে না৷ চরম অনাদর ও অবহেলায় দিন কাটে রাস্তার ধারে কিংবা প্ল্যাটফর্মে৷ এমনই হতভাগ্য শিশুদের কাছেও শিক্ষার আলো পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন৷ বস্তুত, বছর খানেক আগেই জেলা প্রশাসন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, পথশিশুদেরও শিক্ষিত করে তুলতে হবে৷ তখন বর্ধমান, মেমারি, কাটোয়া, কালনার মতো জেলার গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনগুলিতে পথশিশুদের জন্য মিড-ডে মিল চালুর পরিকল্পনা করা হয়৷ সেই উদ্যোগেই নবতম সংযোজন ভ্রাম্যমাণ পাঠশালা৷ বৃহস্পতিবার বর্ধমান স্টেশনে আস্ত একটি ক্লাসরুমে পড়াশোনা শুরু করল ৩০ জন পথশিশু৷ শুধু পড়াশোনার ব্যবস্থাই নয়, পড়ুয়াদের বই, খাতা, পেন ও পেন্সিলও বিতরণ করেন জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা৷ ভ্রাম্যমান পাঠশালায় টিফিনও দেওয়া হবে পথশিশুদের৷ জানা গিয়েছে, প্রথমে এই পাঠশালায় পথশিশুদের কাউন্সেলিং করা হবে৷ আপাতত সপ্তাহ একদিন করে খোলা থাকবে এই ভ্রাম্যমাণ পাঠশালা৷ জেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগে পাশে দাঁড়িয়েছে রেলও৷

[শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে মদ্যপ দাদার হাতে খুন ভাই, চাঞ্চল্য ছড়াল মিরিকে]

বৃহস্পতিবার বর্ধমান স্টেশনে ভ্রাম্যমান পাঠশালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিক নারায়ণচন্দ্র পাল-সহ বিভিন্ন সরকারি স্কুলের ১২ জন শিক্ষক-শিক্ষিকাও৷ পথশিশুদের পড়ালেন সরকারি স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারাই৷ পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিক নারায়ণচন্দ্র পাল বলেন, পথশিশুদের অনেকেই পরিবার ও শিক্ষা না পেয়ে বিপথে চালিত হয়ে যায়। অসামাজিক কাজে জড়িয়ে পড়ে৷ তাই তাদের মূলস্রোতে ধরে রাখতে শিক্ষা দেওয়া অত্যন্ত জরুরি৷

[মহিলাকে জখম করে খাঁচাবন্দি চিতা, লালগড়ের ঘটনা এড়াল শিলিগুড়ি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে