২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এভারেস্টে এখনও নিখোঁজ পর্বতারোহী পরেশ ও গৌতম

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 24, 2016 3:34 pm|    Updated: May 24, 2016 3:34 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: এখনও নিখোঁজ রাজ্যের দুই পর্বত অভিযাত্রী৷ এভারেস্টের কোলেই কোথাও তাঁরা থাকতে পারেন৷ কিন্তু সময় পেরোতেই তাঁদের নিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ৷ তবে এবার তাঁদের উদ্ধারে হেলিকপ্টারের সাহায্য নিতে চায় রাজ্য৷ সেক্ষেত্রে নেপালের সরকারের সম্মতি লাগবে৷ কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে আবহাওয়া৷ তুষারঝড়ের সম্ভাবনা থাকলে কপ্টারও দুর্ঘটনায় পড়তে পারে৷ মূলত এভারেস্টজয়ী দুই নিখোঁজের সন্ধানে নেপালে পৌঁছন রাজ্যের প্রতিনিধিরা৷ এখনও পরেশ নাথ ও গৌতম ঘোষ নিখোঁজ৷ গৌতম কলকাতা পুলিশের কর্মী, বারাকপুর ওল্ড ক্যালকাটা রোডের আনন্দপুরীর বাসিন্দা৷ পরেশের বাড়ি দুর্গাপুরে৷ এঁদের খোঁজে নেপালের এজেন্সিরও সাহায্য নেওয়া হচ্ছে৷
প্রশ্ন উঠছে, এঁরা কোথায়? রহস্যও দানা বাঁধছে৷ অ্যাডভেঞ্চার ফোর্থ ফাউন্ডেশনের একটি সূত্রে গৌতম অক্সিজেনের অভাবেই মারা গিয়েছেন বলে দাবি করা হলেও তা কতদূর সত্যি, প্রশ্ন তা নিয়ে৷ কারণ, রাজ্য সরকারের কাছেও মৃত বলে খবর আসেনি৷ এছাড়া ওই দু’জনের মৃত্যু হলে বা ফেরার পথে তাঁর দেহ থাকলে কোনও না কোনও শেরপার নজরে পড়ত৷ অন্য কোনও দিক থেকে ওঁরা নিজের পথে নামছেন, এরকম সম্ভাবনাও রয়েছে৷ সকালেই দমদম বিমানবন্দর থেকে তাঁরা কাঠমান্ডুর উদ্দেশে রওনা হন৷ নেতৃত্বে রয়েছেন ক্রীড়া সচিব সৈয়দ আহমেদ বাবা৷

দলে রয়েছেন দফতরের যুগ্ম সচিব মুকেশ সিং, গড়িয়াহাট থানার ওসি তথা মাউন্টেনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা উজ্জ্বল রায়৷ যেহেতু রাজ্য সরকারের প্রধান সচিব পদমর্যাদার অফিসার গিয়েছেন, তাই ভিন সরকারের সঙ্গে সমন্বয়সাধনে সুবিধা হবেই বলে মনে করা হচ্ছে৷ অন্যদিকে, সুনীতা হাজরাকে কাঠমান্ডুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছে৷ গতকালই রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, সুভাষ পালের মৃতদেহ উার হয়েছে৷ এভারেস্ট জয় করেও ফেরা হয়নি তাঁর৷ রাজীব ভট্টাচার্য ও সুভাষ পালের দেহ ফেরাতেও উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য৷ আজ বেলার দিকে ধৌলাগিরি অভিযানে গিয়ে মারা যান এভারেস্ট জয়ী রাজীবের দেহ উদ্ধার হয়৷ সন্ধ্যের আগে কাঠমান্ডুতে দেহ আনা হবে বলে রাজ্য সরকার সূত্রে খবর৷
এদিকে, হাওড়ার মলয় মুখোপাধ্যায় যেভাবে পৃথিবীর সর্বোচ্চস্থানে মোহনবাগানের সবুজ-মেরুন পতাকা তুলেছেন, তার প্রশংসা নানা মহলে৷ সাহসী মলয় তাঁর ভালবাসা ও আন্তরিকতার পরিচয়ও দিয়েছেন৷ জাতীয় পতাকার সঙ্গেই জাতীয় ক্লাবের পতাকা লাগিয়েছেন৷ আগামী ২৯ জুলাই কলকাতায় ফিরলে তাঁকে সম্মান জানাবে মোহনবাগান ক্লাব৷ আর এক সাহসী সুনীতার ভূমিকাকেও কুর্নিশ জানাচ্ছেন সবাই৷ ভাল আছেন সুনীতা৷ কাঠমান্ডুর হাসপাতাল থেকে গতকাল রাতে বারাসতের বাড়িতে ফোনে তিনি বলেন, “মৃত্যুকে খুব কাছ থেকে দেখেছি৷ আমি মরিনি৷ মরার হলে আগেই মরে যেতাম৷”
ক্যাম্প-টু-তে ফেরার পথে যে অভিযাত্রীরা নিখোঁজ রয়েছেন, তাঁদের খোঁজ চালানোই বড় কাজ সরকারের৷ সেখানে আগে থেকেই এভারেস্টজয়ী দীপঙ্কর ঘোষ, দেবদাস নন্দীরা রয়েছেন৷ নেপাল সরকারের সঙ্গে আলোচনা করেই উদ্ধারের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে৷ অরূপ বিশ্বাস প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রাখছেন৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement