Advertisement
Advertisement
ওঠবোস

‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বাধ্য করিয়ে কান ধরে ওঠবোস মুসলিম ব্যক্তিকে, গ্রেপ্তার ১

১ মাস ধরে তল্লাশির পর বৃহস্পতিবার একজনকে নাগালে পায় পুলিশ৷

Muslim man forced to chant 'Jai SriRam',one arrested in Cooch Behar
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:June 28, 2019 2:51 pm
  • Updated:June 28, 2019 3:02 pm

বিক্রম রায়, কোচবিহার: ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বাধ্য করে এক মুসলিম ব্যক্তিকে কান  ধরে ওঠবোস করানোর অভিযোগ উঠল একদল বিজেপি সমর্থকের বিরুদ্ধে৷মাস খানেক আগে কোচবিহারের তুফানগঞ্জে এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই তড়িঘড়ি পদক্ষেপ নেয় প্রশাসন৷ সূত্রের খবর, তল্লাশি চালিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে এই ঘটনায় অভিযুক্ত সন্দেহে একজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ গোটা ঘটনায় অন্যান্য জড়িতদের খোঁজ চলছে৷

[আরও পড়ুন: বর্ষার মুখে ফের ডেঙ্গুর ছোবল, হাবড়ায় মৃত অন্তঃসত্ত্বা-সহ ২]

ঘটনার সূত্রপাত মাস খানেক আগের৷ অভিযোগ, তুফানগঞ্জের বাসিন্দা আজগর শেখকে জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে জোর করে জনা কয়েক যুবক৷ তারা সকলেই বিজেপি কর্মী, সমর্থক বলে এলাকায় পরিচিত৷ আজগর আগে এলাকায় তৃণমূল সমর্থক ছিলেন বলে স্থানীয় সূত্রে খবর৷ লোকসভার পর কোচবিহারের রাজনৈতিক হাওয়া বদল হওয়ার পর থেকে তৃণমূলের সঙ্গে আজগরের তেমন আর যোগাযোগ নেই, এমনই জানিয়েছেন ঘনিষ্ঠরা৷ 

Advertisement

প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, আজগরকে কান ধরে ওঠবোস করানোর সঙ্গে সঙ্গে রীতিমত হুঁশিয়ারি দিচ্ছে একদল যুবক৷ বলা হচ্ছে, ‘মমতার নাম করবি না৷ এখন থেকে মোদির নাম বলবি সবসময়ে৷ যদি তৃণমূলের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করতে দেখি, তাহলে কিন্তু খুব খারাপ হবে৷ আজ তোকে দয়া করে ছেড়ে দিলাম৷’ এরপর দেখা যায়, আজগরকে চড় মারছে এক যুবক৷ তাদের হুঁশিয়ারিতে রীতিমত আতঙ্কিত হয়ে সমস্ত অত্যাচার মুখ বুঝে সহ্য করে যাচ্ছেন আজগর৷ এবং তাঁকে দিয়ে প্রায় জোর করে বলানো হচ্ছে, ‘মমতার নাম নিই না৷ তৃণমূলের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করি না৷’ এই ভিডিও প্রকাশিত হতেই বিজেপি পালটা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিল৷ তাতে স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে, এই কাজ তাঁদের নয়৷ তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল এটা৷ অকারণ বিজেপির নাম জড়ানো হচ্ছে৷ তাই যথাযথ তদন্তের দাবি তুলেছিল বিজেপিও৷ 

Advertisement

complain-letter

[আরও পড়ুন: প্রেমের করুণ পরিণতি, মর্গে প্রেমিক, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে তরুণী]

এই ভিডিও ভাইরাল হতেই তড়িঘড়ি পদক্ষেপ নিয়েছে প্রশাসন৷ কারা এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে, তার তদন্ত শুরু করে পুলিশ৷ তাদের তৎপরতায় ধরা পড়েছে আপসি মিঞা নামে এক ব্যক্তি৷ বিকাশ রায় নামে আরেকজন ঘটনায় যুক্ত বলে জানা গিয়েছে৷ তাদের খোঁজে চলছে তল্লাশি৷ কোচবিহারের পুলিশ সুপার সন্তোষ নিম্বালকর জানিয়েছেন, এরকম একটি ঘটনা ঘটেছে৷ আক্রান্ত ব্যক্তি নিজেই অভিযোগ দায়ের করেছেন৷ অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে ১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ যদিও এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করেনি সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল৷ 

দেখুন ভিডিও:

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ