Advertisement
Advertisement
Train accidents

গাফিলতি থেকে সন্ত্রাস! ট্রেন দুর্ঘটনায় বহু মৃত্যুর সাক্ষী বাংলা

'ভারতীয় রেল কি তবে শিশুর হাতের খেলনা গাড়িতে পরিণত হয়েছে?' একের পর এক দুর্ঘটনায় উঠছে প্রশ্ন।

Not only Kanchenjunga West Bengal has seen many Train accidents in state
Published by: Amit Kumar Das
  • Posted:June 17, 2024 4:15 pm
  • Updated:June 17, 2024 5:37 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করমণ্ডলের রক্তাক্ত স্মৃতি এখনও টাটকা। তারই মাঝে ভয়াবহ দুর্ঘটনা এবার কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে। শিলিগুড়ির রাঙাপানিতে দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া ট্রেনের বগি থেকে বের করা হচ্ছে একের পর এক নিথর দেহ। সাম্প্রতিক সময়ে একের পর এক রেল দুর্ঘটনায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, ভারতীয় রেল কি তবে শিশুর হাতের খেলনা গাড়িতে পরিণত হয়েছে? যা নিয়মহীন, শৃঙ্খলাহীন। রেলের এমন দুর্দশায় রীতিমতো আতঙ্কিত দেশবাসী। অবশ্য শুধু কাঞ্চনজঙ্ঘা  নয়, ইতিহাসের পাতা ওলটালে দেখা যাচ্ছে রেল দুর্ঘটনার খুব একটা কম নজির নেই এই বাংলায়। কোথাও কর্তৃপক্ষের চূড়ান্ত গাফিলতি তো কোথাও ভয়াবহ সন্ত্রাসের বলি হতে হয়েছে সাধারণ যাত্রী। একনজরে দেখে নেওয়া যাক বাংলায় ঘটে যাওয়া কিছু মর্মান্তিক ট্রেন দুর্ঘটনা।

গাইসাল ট্রেন দুর্ঘটনা: অতীতের পাতা ওলটালে সর্ব প্রথম যে ভয়াবহ দুর্ঘটনা স্মরণে আসে তা হল গাইসাল ট্রেন দুর্ঘটনা। ১৯৯৯ সালের ২ অগাস্ট উত্তর-দিনাজপুর বিহার সীমানার ছোট্ট গ্রাম গাইসাল হঠাৎ উঠে আসে সংবাদ শিরোনামে। মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় অবধ অসম এক্সপ্রেস আর ব্রহ্মপুত্র মেলের। সরকারি হিসেব, মৃত্যু হয় অন্তত ৩০০ যাত্রীর। জানা যায়, লাইনের চারটি ট্র্যাকের মধ্যে তিনটি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বন্ধ ছিল। যার জেরে উভয় ট্রেন একই ট্র্যাক ধরে আসছিল। ওই অবস্থায় মুখোমুখি ধাক্কা লাগে দুটি ট্রেনের। তদন্তে জানা যায়, সেদিন সিগন্যালে ত্রুটির খেসারত দিতে হয়েছিল ৩০০ জন সাধারণ মানুষকে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় মৃত বেড়ে অন্তত ৮, জখম ৩০]

বেলাকোবা বিস্ফোরণ: ২০০৬ সালে ২০ নভেম্বর পশ্চিমবঙ্গের বেলাকোবা স্টেশনের কাছে ট্রেনে বিস্ফোরণ। সেই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছিলেন ৭ জন যাত্রী। পাশাপাশি আহত হন ৫৩ জন। পরে তদন্তে জানা যায়, ওই হামলা চালিয়েছিল মাওবাদীরা। শুধু তাই নয়, ওই হামলায় ব্যবহার করা হয়েছিল আরডিএক্স। এ রাজ্যে ট্রেনে মাওবাদী হামলার তালিকায় সম্ভবত সেটাই ছিল প্রথম হামলা।

Advertisement

জ্ঞানেশ্বরী এক্সপ্রেস: বেলাকোবার স্মৃতি ঝাপসা হওয়ার আগেই ফের একবার ভারতীয় রেলের বিরুদ্ধে মাওবাদীদের ভয়ংকর ষড়যন্ত্র প্রকাশ্যে আসে। ২০১০ সালের ২৮ মে জ্ঞানেশ্বরী এক্সপ্রেসে দুর্ঘটনা। হাওড়া থেকে মুম্বইগামী এই ট্রেনের যাত্রাপথ তৎকালীন মাওবাদী অধ্যুষিত ঝাড়গ্রামের উপর দিয়ে। জানা যায়, মাওবাদীরা বোমা হামলা চালায় জ্ঞানেশ্বরী এক্সপ্রেসে। যার জেরে লাইনচ্যূত হয় ট্রেনটি। এর পর এক মালগাড়ি এসে ধাক্কা মারে সেই ট্রেনে। ভয়ংকর এই দুর্ঘটনায় ১৪৮ জন রেলযাত্রীর মৃত্যু হয়েছিল।

[আরও পড়ুন: জাতীয় পুরস্কার নিতে যাওয়ার টাকা ছিল না! কোন নায়িকার স্পটবয় হয়ে দিল্লি যান মিঠুন?]

কাজিরাঙা এক্সপ্রেস: এর পর ২০১১ সালের ৩১ জুলাই আরও এক ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটে বাংলায়। মালদহ জেলায় লাইনচ্যুত হয় গুয়াহাটি-বেঙ্গালুরু কাজিরাঙা এক্সপ্রেস। সেই দুর্ঘটনায় অন্তত ৩ জনের মৃত্যু হয়। পাশাপাশি আহত হন অন্তত ২০০ জন।

কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস: এই তালিকায় সর্বশেষ দুর্ঘটনা সোমবার কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস। শিলিগুড়ির রাঙাপানিতে সিগন্যাল ভেঙে কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে ধাক্কা মারে একটি মালগাড়ি। দুর্ঘটনার জেরে লাইচ্যুত হয় দুটি ট্রেনের একাধিক বগি। এই দুর্ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ