১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

খুলছে ফুলবাড়ি-বাংলাবান্ধা সীমান্ত, আড়াই মাস পর শুরু ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্য

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 12, 2020 9:55 pm|    Updated: June 12, 2020 9:57 pm

An Images

সংগ্রাম সিংহ রায়, শিলিগুড়ি: অবশেষে কাটল জট। শনিবার থেকে খুলে যাচ্ছে ফুলবাড়ি-বাংলাবান্ধা সীমান্ত। ফলে এদিন থেকেই এই সীমান্ত দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য শুরু হয়ে যাবে। ভারতের পাশাপাশি ভূটানের গাড়িও এই পথে বাংলাদেশ যাবে। তবে মানতে স্বাস্থ্যবিধি।

দীর্ঘ আড়াই মাসের বেশি সময় ধরে আটকে থাকার পর শনিবার থেকে যাতায়াত শুরু করতে চলেছে মালবাহী গাড়িগুলি। তবে গাড়ি চালকদের ১১ দফা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তবেই মিলবে যাতায়াতের ছাড়পত্র। বৃহস্পতিবার বিকেলে দীর্ঘ আলোচনার পর দু’দেশের আধিকারিকরা যাতায়াত শুরুর ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিয়েছেন। এদিন বাংলাদেশের বাংলাবান্ধা এলাকায় একটি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় স্থল শুল্ক দপ্তরের প্রতিনিধিরা, বিএসএফ আধিকারিকরা-সহ পুলিশের প্রতিনিধিরা। অন্যদিকে, বাংলাদেশের তরফেও BJB আধিকারিক, ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধি, জেলা পরিষদ সদস্যরা। সেই সঙ্গে দু’দেশের আমদানি-রপ্তানিকারকরাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

[আরও পড়ুন : সাগর দত্ত মেডিক্যালে জারি অচলাবস্থা, সমস্যা সমাধানের আশায় মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ বাম বিধায়করা]

  • যে ১১ দফা শর্ত জারি করা হয়েছে, তার মধ্যে বলা হয়েছে,
    গাড়ি চালকরা কোনও অবস্থাতেই যেন সীমান্তে গাড়ি থেকে না নামেন।
  • সঙ্গে শুকনো খাবার এবং জল ও কাগজ-কলম রাখতে হবে।
  • কর্তৃপক্ষের তরফে পৃথক শৌচাগারের বন্দোবস্ত করতে হবে।
  • চালকদের জন্য আলাদাভাবে সীমান্ত পারাপারের বন্দোবস্ত করতে হবে।
  • একটি পৃথক পর্যবেক্ষণ কমিটি তৈরি করা হচ্ছে। সমস্ত কার্যাবলি সিসিটিভি দ্বারা রেকর্ড করার কথা বলা হয়েছে।

[আরও পড়ুন :সরকারি কর্মীদেরও বাড়ি থেকে কাজের নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী, কারা পাবেন এই সুবিধা?]

গত আড়াই মাস ধরে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের পাশাপাশি ভুটানের প্রচুর ট্রাক শুকনো খাদ্যপণ্য এবং পাথর নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এগুলি লকডাউনের পর ফুলবাড়ি সীমান্তে এসেছিল। কিন্তু লকডাউনে সীমান্ত সিল করে দেওয়া হয়। ফলে তারপর সেখান থেকে ফিরতে পারেননি। সীমান্ত খুলে গেলে বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের মাধ্যমে তাদের যাতায়াতের ছাড়পত্র দেওয়া হবে। এর ফলে একটা বড় অংশের মানুষের কর্মসংস্থান ফিরে পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন দুই দেশের ব্যবসায়িক সংগঠনগুলি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement