২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: বর্ধমান পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক বিরুদ্ধে কাটমানি ফেরতের দাবিতে পোস্টার পড়ল। ওই নেতার নাম খোকন দাস। সোমবার সকালে শহরে তাঁর নিজের ওয়ার্ডেই কয়েকটি জায়গায় ওইসব পোস্টার নজরে আসে স্থানীয়দের। পুরসভার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে কোটি কোটি টাকা কাটমানি নেওয়া ও  টাকার বিনিময়ে ১৭ জনকে পুরসভায় চাকরি দেওয়ার অভিযোগ তোলা হয়েছে সেই সব পোস্টারে। আবার কোনও পোস্টারে ওই প্রাক্তন কাউন্সিলরের চরিত্র নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে। এই ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে জেলাজুড়ে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল সেই সব পোস্টার। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, সেই পোস্টারের নিচে লেখা রয়েছে ‘টিএমসি, জয় হিন্দ ও জয় বাংলা।’ যদিও এ প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন খোকনবাবু।

[আরও পড়ুন- মৃত তিন হাতি আত্মার শান্তিকামনায় হবে শ্রাদ্ধ, ন্যাড়া হবেন গ্রামের মানুষ]

এর আগে বর্ধমানে শহরের একাধিক জায়গায় কাটমানি ফেরতের দাবিতে প্রাক্তন কাউন্সিলরদের নামে পোস্টার পড়েছিল। কিন্তু, তাঁরা কেউই তেমন ওজনদার ছিলেন না। কাটমানি ইস্যুতে তৃণমূল নেতাদের বাড়ি ঘেরাও এবং সংঘর্ষ পর্যন্ত হয়েছে। কিন্তু, খোকন দাসের মতো হেভিওয়েট নেতার বিরুদ্ধে পোস্টার পড়তে পারে, কয়েকমাস আগেও তা কল্পনার অতীত ছিল। পুরসভার চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল হলেও কার্যত বকলমে তিনিই পুরসভা চালাতেন, এমনই দাবি রাজনৈতিক মহলের।  শহরের এমন দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতার বিরুদ্ধে নিজের ওয়ার্ডেই যে কাটমানি ফেরতের পোস্টার পড়তে পারে তা অনেকেই ভাবতে পারছেন না।

ওই পোস্টারগুলিতে অভিযোগ করা হয়েছে, গত ৭ বছরে পুরসভা থেকে ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি মালিক কীভাবে হয়েছেন খোকন দাস। উন্নয়নের কাটমানির সেই টাকা ফেরতের দাবি করা হয়েছে পোস্টারে। পুরসভাকে দেউলিয়া করে ওই প্রাক্তন কাউন্সিলর নিজে সম্পত্তি বানিয়েছেন বলেও লেখা হয়েছে। অবিলম্বে সেই সম্পত্তি পুরসভাকে ফেরত দেওয়ার দাবি করা হয়েছে ওই পোস্টারে। আরও অভিযোগ করা হয়েছে, পুরো বর্ধমানের উন্নয়নের টাকায় শুধুমাত্র ২৩ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে (রথতলা, কাঞ্চননগর, উদয়পল্লি এলাকা) উন্নয়ন করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন- প্রিয় শিক্ষককে ছাড়তে নারাজ পড়ুয়ারা, ক্লাস বয়কট করে স্কুলে অবস্থান বিক্ষোভ]

এছাড়াও পোস্টারে বিভিন্ন মহিলার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কেরও অভিযোগ তোলা হয়েছে খোকন দাসের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসার পর সোমবার বিকেলে সাংবাদিক বৈঠকের কথা জানানো হয়েছিল খোকনবাবুর তরফে। যদিও পরে তা বাতিল করা হয়। বিকেলে তাঁর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “কে কোথায় কী নিয়ে পোস্টার দিল তা নিয়ে আমার কোনও মন্তব্য নেই।”

এই ঘটনার পাশাপাশি সোমবার কাটমানি ইস্যুতে খণ্ডঘোষের বামুনপাড়া গ্রামে তৃণমূলের এক নেতার বাড়ি ঘেরাও করা হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। মেমারি থানার নবস্থা-২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয়ে কাটমানি-সহ বিভিন্ন ইস্যুতে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং